মণিপুরী তাঁত বস্ত্রের ডিজাইন উন্নয়নে ১০কোটি টাকার প্রকল্প

    0
    238

    আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৬মার্চ,চৌধুরী ভাস্কর হোম/শাব্বির এলাহীঃ বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম এমপি বলেছেন, বাংলাদেশ মনিপুরী তাঁতের যথেষ্ট কদর রয়েছে। তবে মণিপুরী তাঁত বস্ত্রের ফ্যাশন ডিজাইনের আরো উন্নয়ন করা আবশ্যক। এজন্য সরকার ১০ কোটি টাকা ব্যয়ে এখানেই মণিপুরি তাঁত বস্ত্রের ফ্যাশন ডিজাইনের উন্নয়নকল্পে একটি ইনষ্টিটিউট করার প্রকল্প গ্রহন করছে। ভিশন ২০২১ বাস্তবায়নে প্রত্যেক শ্রেণী-পেশার মানুষকে অর্থনৈতিকভাবে সক্ষম হতে হবে। তাঁতশিল্পীদের যথাযথ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে তাঁতীদের আয় বৃদ্ধি করে স্বাবলম্বী করতে সরকার কাজ করে যাচ্ছে। আগামী ঋণ পাওয়ার উপযোগি সকল তাঁতীকেই ঋণের আওতায় আনা হবে। প্রতিমন্ত্রী শুক্রবার (৬ মার্চ) সকার ১১টায় মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার মাধবপুরে বাংলাদেশ তাঁত বোর্ডের বেসিক কেন্দ্র পরিদর্শণ শেষে বাংলাদেশ তাঁতশিল্পের উন্নয়ন কল্পে কমলগঞ্জ উপজেলার সর্বস্তরের তাঁতীদের সাথে উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় উপরোক্ত কথাগুলো বলেন ।

    কমলগঞ্জ ইউএনও মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম মিঞার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম এমপি। বিশেষ হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের ফ্যাশন ডিজাইনের প্রকল্প পরিচালক (যুগ্ম সচিব) ইমদাদুল হক, বাংলাদেশ তাঁত বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. হাসানুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মাসুদ, কমলগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি এম. মোসাদ্দেক আহমেদ মানিক, জেলা যুবলীগ সভাপতি মো. ফজলুর রহমান, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি আসিদ আলী, সাধারণ সম্পাদক লক্ষ্মী নারায়ণ সিংহ, মাধবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পুষ্প কুমার কানু, মণিপুরী ললিতকলা একাডেমির পরিচালক রামকান্ত সিংহ, উপজেলা যুবলীগ সভাপতি মো. আনোয়ার হোসেন, সাধারণ সম্পাদক মোশাহীদ আলী, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মো. সানোয়ার হোসেন, বাংলাদেশ মণিপুরী সমাজকল্যাণ সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক শ্যাম কান্ত সিংহ। মত বিনিময় সভায় মনিপুরী তাঁতীদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিপ্লব কুমার সিংহ, রনজিৎ কুমার সিংহ ও মিনতী রানী সিনহা প্রমুখ।

    মণিপুরীদের তৈরী তাঁত বস্ত্র উন্নয়নে ও বাজারজাত কারণে নানামুখী সমস্যার কথা প্রতিমন্ত্রীর কাছে তুলে ধরেন মণিপুর নেতৃবৃন্দ। প্রধান অতিথি বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম এমপি আরও বলেন, রাজস্ব উন্নয়নে মনিপুরী তাঁত বস্ত্র যথেষ্ট ভূমিকা রাখছে। এ দিকে দৃষ্টি রেখেই সরকার এ তাঁত বস্ত্রের আরো উন্নয়ন একটি বড় প্রকল্প গ্রহন করছে। মত বিনিময় সভা শেষে বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রীর সম্মানে মণিপুরি শিল্পীদের অংশগ্রহনে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে মৃদঙ্গ নৃত্য, শ্রীকৃষ্ণের বাল্যনৃত্য ও মণিপুরী থালা নৃত্য পরিবেশন করা হয়।