মনোনয়নপত্র দাখিলের সময়সীমা সোমবার পর্যন্ত

    0
    200

    আমারসিলেট24ডটকম,০১ডিসেম্বরঃ এখন পর্যন্ত প্রাপ্ত সর্ব শেষ সংবাদ অনুযায়ী আগামীকাল সোমবার বিকেলেই শেষ হতে পারে আসন্ন ১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ গ্রহণের জন্য মনোনয়নপত্র দাখিলের সময়সীমা। আজ রবিবার রাতে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ বলেন, ডিসেম্বরের ২ তারিখের মধ্যে মনোনয়নপত্র জমা দিতে হবে, ২৫ নভেম্বরের ঘোষিত তফসিলের এ সিদ্ধান্তই বলবৎ রয়েছে। এদিকে আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টিসহ কয়েকটি রাজনৈতিক দল বর্তমান সহিংস রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার সময় সীমা ৪ দিন থেকে ১০ দিন পর্যন্ত সময় বাড়ানোর আবেদন জানিয়েছে। এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তিনি আরো বলেন, ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী মনোনয়ন দাখিলের শেষ সময় অপরিবর্তিত থাকবে।
    এক প্রশ্নের জবাবে সিইসি বলেন, বিরোধী জোটকে নির্বাচনে আনার জন্যে আমরা অনেক দেরি করেছি। বিরোধী দল যদি আসে, সমঝোতা হলে অনেক কিছুর দ্বার উন্মোচন হবে। সমঝোতা হলে অন্য আঙ্গিকে দেখা হবে। অপর এক প্রশ্নর জবাবে তিনি বলেন, সমঝোতার জন্য মধ্যস্থতাকারী হওয়ার একটা সমস্যা রয়েছে। এ সময় আচরণ বিধি প্রতিপালনে নির্বাচন কমিশন কঠোর হবে বলেও সাংবাদিকদের জানান তিনি।
    কাজী রকিব আরও বলেন, দুই দলের মধ্যে মধ্যস্থতা করতে গেলে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হতে পারে। কেউ বলবে ওই দলের পক্ষে, কেউ বলবে এ দলের পক্ষে। সেজন্য সরাসরি এতে জড়িত হইনি। তিনি বলেন, তবে আমরা এনকারেজ করছি। শান্তিপূর্ণ নির্বাচন ছাড়া গণতন্ত্রকে বাঁচিয়ে রাখার উপায় নেই। সমঝোতা হলে অনেক কিছুই সম্ভব।
    সিইসি বলেন, প্রার্থী হতে ইচ্ছুকরা ইতোমধ্যে নির্বাচনী এলাকায় পৌঁছে গেছেন, মনোনয়নপত্রও সংগ্রহ করছেন, তাদের প্রস্তুতিও রয়েছে। যে তফসিল দিয়েছি, সে সময়ে তারা (মনোনয়নপত্র জমা) দিতে পারবেন বলেও তিনি আশা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, সকলে যাতে নির্ভয়ে ভোট দিতে যেতে পারেন এবং পর্যবেক্ষকরা যাতে চলাফেরা করতে পারেন তা নিয়ে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে বৈঠক করেছি। তারা আমাদের জানিয়েছে, ভোটার ও পর্যবেক্ষকদের নিরাপত্তা দেবে।
    বিরাজমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে ইউরোপীয় ইউনিয়ন পর্যবেক্ষক পাঠানোর বিষয়ে এখনও সিদ্ধান্ত নেয়নি- এমন বক্তব্য প্রসঙ্গে সিইসি বলেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধি দল কমিশনে এসেছিলো তফসিল ঘোষণার পর সব বিদেশি পর্যবেক্ষক সংস্থাকে ভোটগ্রহণের তারিখ জানিয়ে নির্বাচন পর্যবেক্ষণে আমন্ত্রণ জানানো হয়। এবারও আমন্ত্রণ জানাচ্ছি। আশা করি ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবারও আসার জন্য পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে চুক্তি করবে।