মানবাধিকার দিবসে আলোচনায় সার্ক মানবাধিকার ফাউণ্ডেশন’র কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ

0
1288
মানবাধিকার দিবসে আলোচনায় সার্ক মানবাধিকার ফাউণ্ডেশন'র কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ

“গণতন্ত্র, আইনের শাসন ও মানবাধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হলে প্রতিটি নাগরিককে সচেতন হওয়া প্রয়োজন”

আমার সিলেট ডেস্কঃ তথ্য প্রযুক্তির অবাধ যোগাযোগের সুবাদে মানবাধিকার লংঘনসহ যে কোন পরিস্থিতির চিত্র বা তথ্য সাধারণ মানুষের কাছে খুব সহজেই পৌঁছে যায়। একমাত্র জনসচেতনতামূলক কার্যক্রমের মাধ্যমে মানুষের অধিকার বিষয়ে সামাজিকভাবে অবহিত করতে হবে এবং এ কাজটি একমাত্র সামাজিক সংগঠনই করতে পারে। বর্তমান বিশ্বে মোড়লদের হাতেই মানবাধিকার ভুলন্টিত।

দেশে গণতন্ত্র, আইনের শাসন ও মানবাধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হলে প্রতিটি নাগরিককে সচেতন হওয়া প্রয়োজন। যে জাতি সচেতন হয় তাদের অধিকার কেউ হরণ করে ছাড় পায় না। স্বাধীনতার পর হতে বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন রূপ ধারণ করেছে। তবে অন্য যে কোন সময়ের তুলনায় বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি ভালো।

সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশনের আয়োজনে বিশ্ব মানবাধিকার দিবস উপলক্ষ্যে অদ্য ১০ ডিসেম্বর সকালে ঢাকা জাতীয় প্রেস ক্লাবে আলোচনা সভায় সংগঠনের মহাসচিব অধ্যাপক মাওলানা মোহাম্মদ আবেদ আলী এসব কথা বলেন। সভায় উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন উপদেষ্টা পরিষদ চেয়ারম্যান ও বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি র.আ.ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এম.পি., প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. মোহাম্মদ হাছান মাহমুদ এম.পি., বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন ঢাকাস্থ ভুটানের রাষ্ট্রদূত রিনচেন কুয়েন্টসিল, জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক, জাতীয় নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর জেনারেল (অব.) আব্দুর রশীদ। সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি বিচারপতি ছিদ্দিকুর রহমান মিয়া।

ভূটানের রাষ্ট্রদূত বলেন, সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন দক্ষিণ এশিয়ার মানবাধিকার সংরক্ষণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারবে যদি সার্ক সদর দপ্তর এ সংগঠনটিকে সহযোগীতা করে। তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশের সাথে ভূটানসহ সার্ক দেশসমূহের সম্পর্ক উন্নয়নে এ সংগঠন সেতুবন্ধন হিসেবে কাজ করতে পারবে। অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন,বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ্যাডভোকেট আবুল হাশেম, জগন্নাথ বিশ^বিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. আহমেদ আবুল কালাম ও ঢাকা মহানগর উত্তর শাখার সভাপতি ও সাবেক তথ্য কমিশনের সচিব মোঃ মুহিবুল হোসেইন, ঢাকা দক্ষিনের সভাপতি নিয়াজ মোর্শেদ।