মিশরের সাবেক সেনা প্রধানকে আনুষ্ঠানিক ভাবে বিজয়ী ঘোষণা

    0
    241

    আমারসিলেট24ডটকম,০৪জুনঃ আরব বসন্তের রেশ ধরেই মিশরের নির্বাচন কমিশন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে সাবেক সেনা প্রধান আব্দেল ফাত্তাহ আল-সিসিকে আনুষ্ঠানিকভাবে বিজয়ী ঘোষণা করেছে।
    কমিশন বলেছে, ৯৬.৯ শতাংশ ভোট পেয়ে বিজয় লাভ করেছেন সিসি।তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী বামপন্থী নেতা হামদিন সাবাহি পেয়েছেন মাত্র ৩.১ শতাংশ ভোট।
    কায়রোতে মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে যখন নির্বাচনের চূড়ান্ত ফল ঘোষণা করাহয়, তখন কিছু সাংবাদিক ও সরকারী কর্মকর্তাকে করতালিতে ফেটে পড়তে দেখা যায়।অনেকেই এসময় আরবের ঐতিহাসিক নাচ ও করতে দেখা যায়।
    গত সপ্তাহে অনুষ্ঠিত এই প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ভোটাভুটিতে অর্ধেকেরও কম ভোটার অংশ নেয়।
    জয়লাভ করে প্রেসিডেন্ট হিসেবে প্রথম ভাষণে আল সিসি দেশকে উন্নয়নের ধারায় নিয়ে যাওয়ার অঙ্গীকার করেছেন।
    গত বছর জুলাই মাসে মিশরের প্রথম গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত প্রেসিডেন্টমোহাম্মদ মুরসিকে ক্ষমতাচ্যুত করার পর থেকেই তার দল মুসলিম ব্রাদারহুডেরসাথে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন সাবেক সেনাপ্রধান সিসি।
    এছাড়া ২০১১ সালে প্রেসিডেন্ট হোসনি মুবারকের পতনের আন্দোলনে যোগ দেয়া অনেকউদারপন্থী ও ধর্মনিরপেক্ষ আন্দোলনকারীরাও নাগরিক অধিকার হরণ করার অভিযোগতুলে এই নির্বাচন বর্জন করেছেন।তিন দিনব্যাপী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ৪৭.৫ শতাংশ ভোট পড়েছে বলে দাবি করেছেন মিশরের নির্বাচন কমিশন।
    সিসি’র জয়লাভের ঘোষণার পর আন্তর্জাতিক ব্যক্তিত্বদের মধ্যে সর্বপ্রটারশুভেচ্ছা জানিয়েছেন যিনি, তিনি হলেন সৌদি আরবের বাৎসাহ আব্দুল্লাহ।
    সদ্যসমাপ্ত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে সিসি’র একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেনহামদিন সাবাহি। এ প্রার্থীও নির্বাচনের গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।তার নির্বাচনী প্রচার বিভাগ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, এ নির্বাচনের গ্রহণযোগ্যতানেই। সাবাহির নির্বাচনী পর্যবেক্ষকদের ওপর হামলা করা ছাড়াও বেশ কয়েক জনকেগ্রেপ্তার করা হয়েছে।
    গত ২৬ মে থেকে ২৮ মে পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলে। ভোটার উপস্থিতি কম থাকার কারণে ভোটগ্রহণের সময় একদিন বাড়ানো হয়েছিল।সুত্রঃইন্টারনেট।