মিয়ানমারের গুলির মুখে বিজিবিঃপরিস্থিতি ক্রমশ খারাপের দিকে

    1
    436
    আমারসিলেট24ডটকম,৩০মেঃ বান্দারবন সীমান্তে নিখোঁজ বিজিবি’র নায়েক সুবেদার মিজানুর রহমানের লাশ ফেরত আনতে গিয়ে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর গুলির মুখে পড়েছে বাংলাদেশের বর্ডার গার্ড পুলিশের (বিজিবি) সদস্যরা। জানা যায়,আজ শুক্রবার বিকাল পৌনে চারটার দিকে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির দোছড়ি এলাকার পাইনছড়ির ৫০ থেকে ৫২ নং সীমান্ত পিলারের কাছে এ ঘটনা ঘটেছে। বিজিবির সূত্রে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার বিজিবিকে লক্ষ্য করে বিজিপির গুলি ছোঁড়ার পর থেকে নিখোঁজ নায়েক সুবেদার মিজানুর রহমানের লাশ আজ শুক্রবার বিকালে ফেরত দেওয়ার কথা ছিল মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনীর। সে অনুযায়ী বিজিবির রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আহম্মদ আলী ও কক্সবাজার সেক্টর কমান্ডার কর্নেল ফরিদসহ বিজিবির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা শুক্রবার বিকাল ৩টায় পানছড়ির ৫৫ নম্বর পিলারের কাছে একটি কফিন নিয়ে অবস্থান করেন।
    এ সময় মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী লাশ ফেরত না দিয়ে বিজিবির কর্মকর্তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়তে থাকে। আত্মরক্ষার্থে বিজিবিও পাল্টা গুলি ছোঁড়েছে। ওই ঘটনার পর পানছড়ি এলাকায় বিজিবির সদস্য সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে। পুরো নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তজুড়ে নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। আতঙ্কে দোছড়ির পানছড়ি এলাকার আশপাশের পাড়াগুলোর লোকজনকে নিরাপদ জায়গায় আশ্রয় দেওয়া হয়েছে। দোছড়ির ইউপি চেয়ারম্যান রশিদ আহম্মদের সূত্রে জানা যায়, বর্তমানে দুর্গম পানছড়ি সীমান্তে গুলি বিনিময় চলছে ও আতঙ্কে ওই এলাকার পাশে পাশের পাড়ার লোকজন এলাকা ছেড়ে অন্যত্র চলে গেছে। কক্সবাজার বিজিবির সেক্টরের কর্মকর্তার সুত্র গুলি বিনিময়ের কথা স্বীকার করে বলেছেন, মিয়ানমারের সীমান্ত রক্ষীবাহিনীর আচরণে পরিস্থিতি ক্রমশ খারাপের দিকে যাচ্ছে। বান্দরবানের পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বিজিবির পক্ষ থেকে তাদের বলা হয়েছে গত মঙ্গলবার গুলিবর্ষণের ঘটনায় নিখোঁজ নায়েক সুবেদার মিজানুর রহমান গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান।তার মৃতদেহ সীমান্তের ওপারে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। আজ শুক্রবার দুপুরে তার লাশ ফেরত দেয়ার কথা ছিল। প্রসঙ্গত, গত মঙ্গলবার সকালে বিজিবির একটি টহল দল ৫২ নং পিলার এলঅকায় টহল দিতে গেলে সেখানে মিয়ানমারের সীমান্ত রক্ষীবাহিনী বিজিপি গুলি বর্ষণ করে। এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধ বিজিবির পানছড়ি ক্যাম্পের অধিনায়ক নায়েক সুবেদার মিজানুর রহমান নিখোঁজ হন। ঘটনার পর থেকেই সীমান্তে এখন পর্যন্ত উত্তেজনা বিরাজ করছে বলে একটি সূত্রে জানা গেছে।