মুক্তিযুদ্ধ করেও রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি ভাগ্যে জোটেনি মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কুদ্দুস মিয়ার

    0
    312

    দেশের মাটি মানুষের জন্য মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কুদ্দুস মৃত্যুর কুপে ঝাপিয়ে পড়েছিল। হানাদার, রাজাকার, আলবদর, পাক বাহিনীর হাত থেকে বেঁচে গেলেও অভাবের নির্মম গ্রাস থেকে বাঁচতে পারেনি, এমনকি আমরা তার প্রতিদান ও দিতে পারিনি

    শ্রীমঙ্গল,১৫ আগষ্ট : ১৫ই আগষ্ট জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমান এর ৩৮তম শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ সংসদ সিলেট বিভাগের সহ ভাইস চেয়ারম্যান, মরহুম মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কুদ্দুস মিয়ার রুহের মাগফেরাত কামনায় শোক সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

    এতে উপস্থিত ছিলেন মাওলানা মহিউদ্দিন আহম্মদ, শিক্ষক, হাজী আব্দুল গফুর উচ্চ বিদ্যালয়, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার। মোঃ আব্দুল মোছাব্বির এলাকার মুরব্বি, মাওলানা ক্বারী মোঃ আবু মুছা, আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থার আইন বিষয়ক সম্মপাদক, শ্রীমঙ্গল শাখা, জাতীয় বীর শেখ জামান, চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ সংসদ সিলেট বিভাগ, মুক্তিযোদ্ধা আলফু মিয়া প্রমুখ।

    উক্ত শোক সভা ও দোয়া মাহফিলে মরহুম বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কুদ্দুসের জীবন সংগ্রামের বিস্তারীত আলোচনা করেন বিভিন্ন বক্তারা। বক্তাগণ বলেন দেশের মাটি ও মানুষের জন্য মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কুদ্দুস মৃত্যুর কুপে ঝাপিয়ে পড়েছিল। হানাদার, রাজাকার, আলবদর, পাক বাহিনীর হাত থেকে বেঁচে গেলেও অভাবের নির্মম গ্রাস থেকে বাঁচতে পারেনি, এমনকি আমরা তার প্রতিদান ও দিতে পারিনি।

    বক্তাগণ বলেন মুক্তিযুদ্ধ করেও মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি জোটেনি মরহুম মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কুদ্দুস মিয়ার । অথচ অনেক রাজাকার আলবদরকেও মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে পাওয়া যায়।

    বক্তাগণ আরো বলেন বর্তমান মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের সরকারের প্রতি আবেদন জানান অনতিবিলম্বে মরহুম মুক্তিযোদ্ধা আব্দল কুদ্দুস মিয়াকে রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি দিয়ে তার রেখে যাওয়া অসহায় পরিবারটিকে মুক্তিযোদ্ধা পরিবার হিসেবে মূল্যায়ন করত সরকারের নীতি নির্ধারকদের প্রতি আবেদন জানান।