মেয়র মোহাম্মদ হানিফ ফ্লাইওভার উদ্বোধন হল

    0
    233

    আমারসিলেট 24ডটকম,১১অক্টোবর:দেশের সর্ববৃহৎ উড়ালসড়ক মেয়র মোহাম্মদ হানিফ ফ্লাইওভার উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বিকেল ৪টায় ফ্লাইওভারটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী। এসময় উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, স্থানীয় সরকার প্রতিমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানক সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তা ও ওরিয়ন গ্রপের কর্মকর্তারা। উদ্ধোধন শেষে তিনি সেখান থেকে ফ্লাইওভারের ওপর দিয়ে গাড়িতে চড়ে কুতুবখালি প্রান্তে যান এবং সেখানে ফলক উন্মোচন করেন। সেখানে মোনাজাত শেষে প্রধানমন্ত্রী নিজে ৫০ টাকা টোল দেন। টোল দেওয়া শেষে তিনি সেখানে উপস্থিত হাজার হাজার মানুষের মাঝে হাত নেড়ে শুভেচ্ছা জানিয়ে আবার ফ্লাইওভার দিয়ে ওসমানী মিলনায়তনের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেন। এর আগে গুলিস্তান থেকে যাত্রাবাড়ী আসার পথে সায়েদাবাদ সুপার মার্কেটের কাছের একটি স্থানে গাড়ি থামিয়ে নেমে কিছুদূর হেঁটে ফ্লাইওভার থেকে আশপাশের এলাকা দেখেন। আগামীকাল শনিবার থেকে ফ্লাইওভারটি যানবাহন চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। প্রায় ১১ কিলোমিটার দীর্ঘ এই ফ্লাইওভার চালু হওয়ার পর রাজধানীর একাংশে যানজট অনেক কমে আসবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ (পিপিপি) পদ্ধতিতে নির্মিত দেশের এটি প্রথম ফ্লাইওভার।
    দীর্ঘতম এই ফ্লাইওভারে যানবাহন প্রবেশের সময় টোল দিতে হবে না। বের হওয়ার পথে টোলের জন্য নির্ধারিত অর্থ দিতে হবে। তবে জনসাধারণের প্রবেশে কোন বাধা থাকবে না, টোলও দিতে হবে না। যানবাহন অনুযায়ী নির্ধারিত টোলের হার: ট্রেইলার ২০০ টাকা, ট্রাক ১৫০ টাকা, বাস ১৫০ টাকা, ট্রাক (চার চাকা) ১০০ টাকা, মিনি বাস ১০০ টাকা, পিকআপ ৭৫ টাকা, মাইক্রোবাস ৫০ টাকা, জিপ ৪০ টাকা, প্রাইভেট কার ৩৫ টাকা, অটোরিক্সা ১০ টাকা, দুই চাকার বাহন ৫ টাকা। যাত্রাবাড়ী থেকে গুলিস্তান পর্যন্ত ফ্লাইওভারটি ঝকঝকে ও দৃষ্টিনন্দন করে তোলা হয়েছে। ফ্লাইওভারটির বিস্তৃতি নিমতলী হয়ে পলাশী পর্যন্ত। তবে আজ শুক্রবার উদ্বোধন করা হয়েছে এর গুলিস্তান অংশ পর্যন্ত। প্রকল্প পরিচালক আশিকুর রহমান জানান, ১৩টি র‌্যাম্পের মধ্যে তিনটির কাজ বাকি রয়েছে। মূল ফ্লাইওভার চালু হওয়ার পর দ্রুততম সময়ে বাকি তিনটি র‌্যাম্প নির্মাণ করা হবে।