“মোদির ক্ষয়-দিদির জয়” নাকি ‘রামধাক্কা রামরাজ্যেই’ কোন শিরোনামে এগিয়ে মুদি?

0
23
"মোদির ক্ষয়-দিদির জয়" নাকি 'রামধাক্কা রামরাজ্যেই’ কোন শিরোনামে এগিয়ে মুদি?

আমার সিলেট রিপোর্ট: তাহলে কি বিজেপি এককভাবে ক্ষমতায় আসতে পারছে না? কলকাতাঔ্র আরেকটি বাংলা পত্রিকা ‘এই সময়’ তাদের শীর্ষ শিরোনাম করেছে ‘মোদীর ক্ষয়… দিদির জয়’ ?

তাদের প্রকাশিত পত্রিকায় হেডলাইনের নিচে পরিসংখ্যান রয়েছে ভোটের, আর তারও নিচে পাশাপাশি তিনটি শিরোনাম ছেপেছে কাগজটিসহ বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম।

বড় অক্ষরে মূল শিরোনামে লেখা হয়েছে ‘নিরঙ্কুশ নন, রামধাক্কা রামরাজ্যেই’, মাঝের শিরোনাম পশ্চিমবঙ্গের ফলাফল নিয়ে : ‘মমতা বঙ্গে ফুল ফোটালেন সেনাপতি অভিষেক’ আর একেবারে ডানদিকের শিরোনাম ‘আজ বৈঠকে টিম ইন্ডিয়া’।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, মমতা ব্যানার্জী ও অভিষেক ব্যানার্জী এবং রাহুল গান্ধী – তিনজনের ছবিই রয়েছে তিনটি প্রতিবেদনের সঙ্গে।

প্রতিবেশী দেশ ভারতের এবারের লোকসভা নির্বাচন আন্তর্জাতিক মহলে খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি নির্বাচন। নির্বাচনের ফলাফলে এখন পর্যন্ত ৩২৯টি আসনের চূড়ান্ত ফল ঘোষণা করা হয়েছে। এর মধ্যে ১৬১টিতে জয় পেয়েছে ক্ষমতাসীন দল বিজেপি। ৬৫টি আসনে জয় পেয়েছে প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেস। তথাপিও প্রশ্ন রয়েছে বিজেপি কি এককভাবে ক্ষমতায় আসতে পারছেন না? এমন প্রশ্নের উত্তর কিছুটা জটিল হলেও পজিটিভ বলেই ধারণা করা হচ্ছে এর জন্য কোয়ালিসন সরকার গঠনের সম্ভাবনা রয়েছে।

যাদের সাথে জোট গঠন করতে হবে সে দলগুলোর মধ্যে সমাজবাদী পার্টি (এসপি) ২৪টি, তৃণমূল কংগ্রেস ১৫টি, জনতা দল (জেডি-এস) ছয়টি, দ্রাবিড় মুনেত্র কড়গম (ডিএমকে) পাঁচটি, তেলেগু দেশাম (টিডিপি) চারটি, শিবসেনা (উদ্ধব ঠাকরে) চারটি, কমিউনিস্ট পার্টি অব ইন্ডিয়া- সিপিআই (এম) চারটি, আম আদমি পার্টি তিনটি, জনতা দল (সেকুলার) দুটি, লোক জনশক্তি পার্টি (রামবিলাস) দুটি, যুবজনা শ্রমিকা রাইথু কংগ্রেস পার্টি (ওয়াইএসআরসিপি) দুটি, শিবসেনা (এসএসএইচ) দুটি, জন্মু-কাশ্মীর ন্যাশনাল কনফারেন্স দুটি আসনে জয় পেয়েছে।

ভারতের নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে এ তথ্য জানানো হয়েছে। ওয়েবসাইটের তথ্য বলছে, বিজেপি ৭৯ আসনে এগিয়ে রয়েছে। কংগ্রেস এগিয়ে রয়েছে ৩৪ আসনে। সমাজবাদী পার্টি (এসপি) ১৩ আসনে, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল তৃণমূল কংগ্রেস ১৪ আসনে এবং ডিএমকে ১৬ আসনে এগিয়ে রয়েছে।

এখন পর্যন্ত প্রাপ্ত ফলাফলে এটা নিশ্চিত যে, বিজেপি এককভাবে ক্ষমতায় আসতে পারছে না। লোকসভার মোট ৫৪৩ আসনের মধ্যে সরকার গড়তে প্রয়োজন ২৭২ আসন। বিজেপি যেসব আসনে এগিয়ে রয়েছে, সেগুলোতে জয় ধরলেও আসনসংখ্যা দাঁড়ায় ২৩৯।

গত লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি এককভাবে ৩০৩ আসনে জয় পেয়েছিল। সেবার বিজেপির নেতৃত্বাধীন জোট এনডিএ ৩৫২ আসনে জয় পায়। তবে ধারণা করা হচ্ছে এবারের নির্বাচনে বিজেপি জিতলেও একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে না। সেক্ষেত্রে এনডিএ জোট শরিকদের ওপর নির্ভর করতে হবে বিজেপিকে। এনডিএ জোটের শরিকদের প্রধান অন্ধ্র প্রদেশে চন্দ্রবাবু নাইডুর তেলেগু দেশম এবং বিহারে মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমারের জনতা দল-ইউনাইটেড (জেডি–ইউ)।

এই দুই দল ছাড়া আরও একাধিক এনডিএ শরিকের ওপরে নির্ভর করতে হবে বিজেপিকে। এদের মধ্যে রয়েছে মহারাষ্ট্রের শিবসেনার সিন্ধে গোষ্ঠী, বিহারে লোক জনশক্তি পার্টি এবং উত্তর প্রদেশের রাষ্ট্রীয় লোক দল।

গত নির্বাচনে কংগ্রেস এককভাবে পেয়েছিল ৫২টি আসন। আর কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন তৎকালীন ইউপিএ জোট পেয়েছিল ৯৪ আসন।