মোবাইল ব্যাংকিং এর গ্রাহক কোটির উপরে

    0
    255

    আমার সিলেট  24 ডটকম,১৪নভেম্বরঃ মোবাইল ব্যাংকিং এর গ্রাহক সংখ্যা এক কোটি (১০ মিলিয়ন) এর মাইল ফলক অতিক্রম করেছে। ১১ নভেম্বর, ২০১৩ তারিখে মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিসেস এর গ্রাহক সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ কোটি ২ লাখ ৩৫ হাজার। এপ্রিল১৩ মাসে এ সংখ্যা ছিল ৫০ লক্ষ (০৫ মিলিয়ন)। ০৭ (সাত) মাসের ব্যবধানে এ সংখ্যা দ্বিগুণ হওয়া আপামর জনগোষ্ঠীর কাছে এ সেবার গ্রহণযোগ্যতার স্বাক্ষর বহন করে। মোবাইল ব্যাংকিং শুরুর মাত্র ০৩ (তিন) বছরের মধ্যে এ অর্জন আর্থিক অন্তর্ভুক্তি (ফিনান্সিয়াল ইনক্লুশন) কার্যক্রমে বিশেষ অবদান রাখবে রাখবে অর্থনীতিবিদদের ধারনা ।প্রবাসীদের কষ্টার্জিত অর্থ দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে বসবাসরত উপকারভোগীদের নিকট দ্রুততম সময়ে পৌঁছানোর লক্ষ্যে মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিসেস এর যাত্রা শুরু হলেও তা এখন আর শুধুমাত্র এ সেবার মধ্যেই সীমাবদ্ধ নেই। মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিসেস এর মাধ্যমে এখন অর্থ প্রেরণ, জমা ও উত্তোলন, বেতন ভাতাদি প্রদান, ইউটিলিটি বিল পরিশোধ, মার্চেন্ট পেমেন্ট ইত্যাদি কার্যক্রমসহ মোবাইল রিচারজের কাজ ও পরিচালিত হচ্ছে।

    মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিসেস একটি আর্থিক অন্তর্ভুক্তিমূলক সেবা হিসেবে বিশ্বব্যাপী পরিচিত। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে এ সেবা অনেক আগে থেকেই প্রচলিত হলেও বাংলাদেশে নিকট অতীত অর্থাৎ ২০১০ সালে মোবাইল ফিনন্সিয়াল সার্ভিসেস এর কার্যক্রম শুরু হয়। এ পর্যন্ত বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক ২৮টি ব্যাংককে এ সেবা প্রদানের অনাপত্তি প্রদান করা হয়েছে, তন্মধ্যে ১৯টি ব্যাংক ইতিমধ্যে এ সেবা চালু করতে সক্ষম হয়েছে। ব্র্যাক ব্যাংক লি: এর সাবসিডিয়ারি প্রতিষ্ঠান “বিকাশ” এবং “ডাচ বাংলা ব্যাংক মোবাইল ব্যাংকিং”ইস লামী ব্যাংকের “এমক্যাশ”  সার্ভিস প্রদানে নেতৃত্বের ভূমিকায় রয়েছে।

    মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিসেস এর মাধ্যমে লেনদেনের বিষয়ে জনগণের মধ্যে সৃষ্ট বিপুল আগ্রহ ক্রমেই বৃদ্ধি পাচ্ছে। সেপ্টেম্বর”২০১৩ মাসে এ সেবা গ্রহণকারী গ্রাহক সংখ্যা ছিল ৮.৯৩ মিলিয়ন যা অক্টোবর”২০১৩ মাসে বৃদ্ধি পেয়ে ৯.৯৮ মিলিয়ন হয়েছে। গ্রাহক সংখ্যা বৃদ্ধির মাসিক হার প্রায় ১১.৭৯ শতাংশ। অক্টোবর,২০১৩ মাসে মোট লেনদেনের সংখ্যা ও পরিমাণ ছিল যথাক্রমে ২ কোটি ৩৬ লাখ এবং ৫০৯৬.০০ কোটি টাকা। দৈনিক গড় লেনদেন সংখ্যা ৭ লাখ ৮৫ হাজার এবং দৈনিক লেনদেনের পরিমাণ ১৭০ কোটি টাকা।মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিসেস এর মধ্যে গ্রাহকদের পছন্দনীয় সেবাগুলো হচ্ছে অর্থ স্থানান্তর, নগদ জমা এবং নগদ উত্তোলন। একইসাথে মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিসেস ব্যবহার করে বেতন ভাতাদি প্রদান এবং ইউটিলিটি বিল পরিশোধের পরিমাণও ক্রমান্বয়ে বৃদ্ধি পাচ্ছে বলে জানা যায় ।