মৌলভীবাজারে এসএমই ও ব্যাংকিং সুবিধা বিষয়ক মতবিনিময় সভা

    0
    467

    মৌলভীবাজারে এসএমই ও ব্যাংকিং সুবিধা বিষয়ক মতবিনিময় সভা।

    মৌলভীবাজার, ০৪ মে : মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার মুন্সিবাজারের শাহজালাল কমিউনিটি সেন্টারে স্থানীয় বনিক সমিতি ও অগ্রণী ব্যাংকের যৌথ উদ্যোগে গতকাল শুক্রবার বিকালে ব্যাংকার-উদ্যোক্তা মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। স্থানীয় এসএমই উদ্যোক্তা ও নারী উদ্যোক্তাদের উদ্যোগকে উৎসাহিত করে তাদেরকে ব্যাংকিং সেবা প্রাপ্তিতে সহযোগিতার নিমিত্তে মুন্সিবাজার বনিক সমিতির সভাপতি আসিক মিয়ার সভাপতিত্বে আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক সুকোমল সিংহ চৌধুরী। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন অগ্রণী ব্যাংকের উপ মহাব্যবস্থাপক মো. বেনজীর কামাল, মুন্সিবাজার ইউপি চেয়ারম্যান মো. সাতির মিয়া, ইউপি চেয়ারম্যান জনাব মিহির কান্তি দাশ, চেয়ারম্যান সেলিম আহমদ প্রমুখ।
    সভায় প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, দেশের প্রকৃত অর্থনৈতিক উন্নয়নে এসএমই খাতের গুরুত্ব এবং এসএমই ঋণ সংক্রান্ত বিভিন্ন নীতিমালা তুলে ধরেন। তিনি বলেন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মূল দায়িত্ব পরিপালনের পাশাপাশি বাংলাদেশ ব্যাংক এখন উদ্যোক্তাদের কাছাকাছি চলে এসেছে। এসএমই উন্নয়নে অর্থ কোন সমস্যা নয়; প্রকৃত উদ্যোগ আর ব্যাংকারদের আন্তরিক সহযোগিতাই এ খাতের উন্নয়নে মূখ্য ভূমিকা পালন করে। তিনি অত্র অঞ্চলে এসএমই উন্নয়নে ব্যাংকগুলোর কার্যক্রমের প্রশংসা করেন এবং ব্যাংকগুলোকে আরো উদার মানসিকতার সঙ্গে কাজ করার মাধ্যমে এসএমইকে সামনে এগিয়ে নেয়ার আহ্বান জানান। তিনি আরো উল্লেখ করেন যে, মৌলভীবাজার অঞ্চলের এসএমই উন্নয়নে গভর্নর মহোদয় অত্যন্ত আন্তরিক। তিনি বার বার এ অঞ্চল সফর করেছেন এবং এরই ধারাবাহিকতায় আজকের এ সমাবেশ। গভর্নর মহোদয়ের এই প্রচেষ্টাকে সফলতায় রূপান্তর করার জন্য মুন্সিবাজার তথা মৌলভীবাজারের শিল্প ক্লাস্টার উন্নয়নের মাধ্যমে এসএমই ও নারী উদ্যোক্তাদের উন্নয়নের লক্ষ্যে এলাকার বিদ্যমান শিল্প ক্লাস্টার চিহ্নিত করে সেগুলোর উন্নয়নে এগিয়ে আসার জন্য ব্যাংকার ও উদ্যোক্তাদের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি মুন্সিবাজারের কৃষি ভিত্তিক শিল্প পোল্ট্রি, ফিশারিজ, টি প্রসেসিং, লেবু, আনারস ও সবজি প্রসেসিং, বিভিন্ন ফল থেকে জ্যাম, জেলি, পিকেল উৎপাদন, আগড়, রাবার উৎপাদন, বাঁশ ও বেতের তৈরি সামগ্রী, লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং শিল্প, ব্রিক ফিল্ড, পর্যটন ও বিনোদন সহায়ক প্রভৃতি শিল্প ক্লাস্টার উন্নয়নে সহায়তার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। তিনি মুন্সিবাজারকে এসএমইএর শিল্প মডেল হিসেবে গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়ে বলেন যে, বাংলাদেশ ব্যাংক আপনাদের পাশে আছে আপনারা এগিয়ে আসুন উন্নয়ন এলাকার হবেই হবে। মুন্সীবাজার এলাকার উন্নয়নের জন্য পূবালী ব্যাংকের আইন কর্মকর্তা ও আঞ্চলিক ঋণ প্রশাসক জনাব মো. আবু তাহের এডভোকেট পূবালী ব্যাংকের একটি শাখা খোলার বিষয়ে ঘোষণা প্রদান করেন। এছাড়াও স্থানীয় সব বক্তা এসএমই উন্নয়নে গুরুতপূর্ন ভূমিকা রাখার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক, গভর্নর মহোদয় ও মহাব্যবস্থাপক সুকোমল সিংহ চৌধুরীকে বিশেষ ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। অনুষ্ঠান শুরুর পূর্বে মহাব্যবস্থাপক মহোদয়ের নেতেৃত্বে বাংলাদেশ ব্যাংক ও স্থানীয় ব্যাংকারদের সমন্বয়ে গঠিত একটি প্রতিনিধি দল পাঁচগাঁওয়ের দুলিজোড়ার শীতল পাটি শিল্প ক্লাস্টার সরেজমিন পরিদর্শন করেন। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান জনাব মিহির কান্তি দাশ, শীতল পাটি শিল্প পরিষদের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকসহ শীতল পাটি শিল্পোদ্যোক্তা ও নারী উদ্যোক্তাদের সঙ্গে পরিদর্শনকালে অনানুষ্ঠানিক মতবিনিময় সভায় মিলিত হন। তিনি এ শিল্প ক্লাস্টারের সমস্যা ও সম্ভাবনার কথা মনযোগ দিয়ে শ্রবন করেন। ঐতিহ্যবাহী এ শিল্প ক্লাস্টার উন্নয়নের সম্ভাবনার কথা বিবেচনা করে উপস্থিত অগ্রণী ব্যাংকের উপ মহাব্যবস্থাপক জনাব মো. বেনজির কামাল এ শিল্প ক্লাস্টারটি উন্নয়নে জন্য সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন। তিনি বলেন যে, এখন থেকে এ অঞ্চলের শীতল পাটি ক্লাস্টারটি অগ্রণী ব্যাংকের ক্লাস্টার যা উন্নয়নে যথাযথ ভূমিকা রাখবে। পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত ও গীতা পাঠের মাধ্যমে শুরু হওয়া সভার শুরুতে প্রধান অতিথির উদ্দেশ্যে সাবিনা ইয়াসমিন মানপত্র পাঠ করেন এবং হস্তান্তর করেন। অনুষ্ঠানে মৌলভীবাজারের সব ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের শাখা ব্যবস্থাপক, আঞ্চলিক প্রধান এবং স্থানীয় ব্যবসায়ী নেতারা ও এসএমই উদ্যোক্তা/ নারী উদ্যোক্তাগন উপস্থিত ছিলেন।

     

    বড়লেখায় প্রতারক ট্রাভেলস ব্যবসায়ী জনতার হাতে আটক

    মৌলভীবাজার, ০৪ মে: বড়লেখায় প্রতারক এক ট্রাভেলস ব্যবসায়ী জনতার হাতে আটক হয়েছে। স্থানীয় জনতা তাকে উত্তম-মধ্যম দিয়ে একটি বাড়িতে আটক রেখেছেন।
    সরেজমিনে গতকাল শুক্রবার বিকেলে পৌর শহরের মহুবন্দ গ্রামে গিয়ে জানা গেছে, উপজেলার দক্ষিণভাগ ইউনিয়নের দক্ষিণভাগ গ্রামের মৃত আব্দুল হামিদের ছেলে মাও. রফিকুল ইসলাম প্রায় এক বছর আগে পৌর শহরের মধ্যবাজারে রফিকিয়া কম্পিউটার এ ট্রাভেলস নামে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলেন। আটাবের কোনো ধরণের সদস্যপদ ছাড়াই পৌরসভা থেকে ট্রেড লাইসেন্স দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে তিনি ব্যবসা চালিয়ে আসছেন। শুরু থেকেই বিভিন্ন বিদেশগামী যাত্রীদের সঙ্গে প্রতারণার অভিযোগ ওঠে। বিদেশগামী যাত্রীদের কাছ থেকে টিকেট বাবদ টাকা নিয়ে যাত্রী না পাঠিয়ে এবং অন্য ট্রাভেলস (পাওয়ার অফিস) কর্তৃপক্ষকে ব্ল্যাংক চেক দিয়ে প্রতারণা চালিয়ে আসছেন। প্রায় দুই মাস আগে জুড়ী উপজেলার ফল্লাদপুর গ্রামের মৃত নেছার উদ্দিনের ছেলে কাতার যাত্রী জয়নাল আবেদীন অপর এক যাত্রীসহ ওই ট্রাভেলস মালিককে দুটি টিকেট বাবদ ৬০ হাজার টাকা দেন। কিন্তু টিকেট ইস্যু না করে জয়নাল আবেদীন ও অপর যাত্রীকে দুই বার ঢাকায় পাঠানো হয়। আজ হচ্ছে কাল হচ্ছে এসব কথা বলে নানাভাবে কালক্ষেপণ করতে থাকেন। এমনকি ওই যাত্রীর পাসপোর্ট ঢাকার ফকিরাপুলস্থ সোমা ইন্টারন্যাশনাল সার্ভিসে আটক রাখেন সেখানকার কর্তৃপক্ষ। তাদের অভিযোগ, বড়লেখার ট্রাভেলস মালিক রফিকুল ইসলামের কাছে তারা টাকা পাবেন। এজন্য তারা বেশ কয়েকটি পাসপোর্ট আটক করেন।
    সর্বশেষ প্রতারিত যাত্রী জয়নাল আবেদীন বড়লেখায় তার আত্মীয়-স্বজনদের বিষয়টি জানালে তারা ট্রাভেলস মালিককে এ বিষয়ে কথা বললে ট্রাভেলস বন্ধ করে লাপাত্তা হয়ে যান। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে ট্রাভেলস মালিক মাও. রফিকুল ইসলামকে উপজেলার কাঁঠালতলী বাজার থেকে আটক করা হয়। এরপর নিয়ে যাওয়া হয় বড়লেখা পৌর শহরের মহুবন্দ এলাকায়। বিষয়টি সর্বত্র ছড়িয়ে পড়লে পাওনাদার, ভুক্তভোগী এবং প্রতারিত ব্যক্তিরা ভিড় জমান সেখানে। বর্তমানে স্থানীয় মুরব্বিদের জিম্মায় তাকে রাখা হয়েছে। তার আত্মীয়-স্বজনরা না এলে শুক্রবার রাতে পুলিশে সোপর্দ করা হবে।
    ভুক্তভোগী সূত্র ও খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ভিজিট ভিসায় কাতার গমনের টিকেট বাবদ বড়লেখার দক্ষিণভাগের বাসিন্দা আবুল হাসান তাফাদারের ৯৬ হাজার টাকা, ডিমাই এলাকার স্বপন আহমদের প্রায় ২৫ হাজার টাকা আত্মসাৎ করেন ট্রাভেলস মালিক রফিকুল ইসলাম। এছাড়া সুড়িকান্দি গ্রামের বাবুল নামের এক ব্যক্তির টাকা আত্মসাৎ করেন। কাতার যাত্রী পাঠানো বাবদ সিলেটের জনৈক এক ট্রাভেলস ব্যবসায়ীকেও তিনি ব্ল্যাংক চেক দিয়ে প্রতারণা করেন। এসব ছাড়াও বিভিন্ন ব্যক্তির কাছ থেকে টাকা নিয়ে তাদের সঙ্গে প্রতারণা করার অভিযোগ রয়েছে। এ ব্যাপারে রফিকিয়া কম্পিউটার এ ট্রাভেলস মালিক মাও. রফিকুল ইসলাম এসবের সত্যতা স্বীকার করেন। তবে কিছু কিছু ব্যক্তির টাকা তিনি ফিরিয়ে দিয়েছেন বলে দাবি করেন।  
    এ বিষয়ে ঢাকার ফকিরাপুলস্থ সোমা ইন্টারন্যাশনাল সার্ভিসের মালিক মোতাহার হোসেন বাবুলের প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপক নুুরুল হকের মোবাইল নাম্বার (০১৭১১-৩৪৫৫১৭) রিং হলেও ফোন রিসিভ করেননি।

     

    মৌলভীবাজারে বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস পালিত

    মৌলভীবাজার, ০৪ মে : ‘সাংবাদিকদের নিরাপত্তা’ এ  প্রতিপাদ্য বিষয় নিয়ে মৌলভীবাজারে পালিত হয়েছে ২০তম বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস পালিত হয়েছে। কর্মক্ষেত্রে, অর্থনৈতিক ভাবে, প্রতিষ্টান থেকে এবং সাংবাদিক সংগঠনের পক্ষ থেকে নিরাপত্তা বলয় তৈরি করে মুক্ত গণমাধ্যমকে আরো শক্তিশালী করার জোরদাবী জানিয়ে শুক্রবার সকালে প্রেসক্লাব ও রেডিও পল্লী কন্ঠের যৌথ উদ্দ্যেগে মৌলভীবাজার প্রেসক্লাব মিলনায়তনে প্রেসক্লাবের সহসভাপতি আব্দুল হামিদ মাহবুবের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন গনমাধ্যমকর্মী এসএম উমেদ আলী, রেডিও পল্লী কন্ঠের স্টেশন ম্যানাজার মেহেদী হাসান, গণমাধ্যমকর্মী সৈয়দ হুমায়েদ আলী শাহিন, আকমল হোসেন নিপু, নুরুল ইসলাম শেফুল, নজরুল ইসলাম মুহিব প্রমুখ। এছাড়াও জেলায় কর্মরত সকল প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার প্রতিনিধিগন উপস্থিত ছিলেন।

    কমলগঞ্জে মণিপুরী ছাত্রীকে অপহরণের ঘটনায় মামলা : এক জনকে জেলা হাজতে প্রেরণ

    কমলগঞ্জ, ০৪ মে : মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার সীমান্তবর্তী ইসলামপুর ইউনিয়নে মণিপুরী এক কলেজ ছাত্রীকে অপহরণের ঘটনায় থানায় আওয়ামী লীগ নেতার ছেলেসহ ৯ জনকে আসামি করে মামলা। আটককৃত মুহিবুর রহমানকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
    থানা সূত্রে জানা যায়, মণিপুরী এক কলেজ ছাত্রীর বাবা রঞ্জিত কুমার সিংহ বাদি হয়ে আশিক আলীর ছেলে খোকন মিয়া (২৬) ও আদমপুর ইউনিয়নের নঈনার পর গ্রামের মুহিবুর রহমান (২৫)সহ ৯ জনকে আসামি করে গত মঙ্গলবার রাতেই অপহরনের চেষ্টা ও নারী নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেছেন। আটককৃত মুহিবুর রহমানকে জেলা হাজতে প্রেরণ করেছে কমলগঞ্জ থানা পুলিশ। বাকীরা পলাতক রয়েছে।
    কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ নিহার রঞ্জন নাথ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন ঘটনাস্থল থেকে তিনি ধৃত অবস্থায় মুহিবুর রহমানকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। পলাতকদের গ্রেপ্তারে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
    উল্লেখ্য, গত ৩০ এপ্রিল মঙ্গলবার রাত ৮টায় মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার সীমান্তবর্তী ইসলামপুর ইউনিয়নের গোলের হাওর এলাকায় মণিপুরী এক কলেজ ছাত্রীকে অপহরণের চেষ্টাকালে গ্রামবাসী চাকুসহ দুই বখাটেকে ধরে গণধোলাই দিয়ে আটকিয়ে রাখার পর আটক ছেলেকে ছাড়িয়ে নেয় এবং মামলা করায় নানা হুমকীর মধ্যে বসবাস করছেন বলে অভিযোগ করেন মামলা বাদী ও মেয়ের বাবা মণিপুরী তাঁতী রঞ্জিত সিংহ।