মৌলভীবাজারে জাল কোর্ট ফি ও স্ট্যাম্প বিক্রির অপরাধে দুই জনের ৫ বছরের জেল-জরিমানা

0
342

আমার সিলেট ডেস্কঃ মৌলভীবাজার চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুহম্মদ আলী আহসান আজ ২৮ সেপ্টেম্বর বুধবার দুপুরে প্রকাশ্য আদালতে জি.আর ৫০/২০১১ (শ্রীমঙ্গল) নং মামলায় সাজার রায় ঘোষণা করেন।
জি.আর ৫০/২০১১ (শ্রীমঙ্গল) নং মামলায় অভিযুক্ত নজরুল ইসলাম, রমেন্দ্র ভট্টাচার্য কে পেনাল কোডের ৪৬৭ ধারায় দোষী সাব্যস্ত করত;৫ বছরের সশ্রম কারাদন্ড ও ১০ হাজার টাকা অর্থদন্ড, অনাদায়ে আরো ২ মাস সশ্রম কারাদন্ড ও পেনাল কোডের ৪৬৮ ধারায় দোষী সাব্যস্ত করত ৫ বছরের সশ্রম কারাদন্ড ও ১০ হাজার টাকা অর্থদন্ড, অনাদায়ে আরো ২ (দুই) মাসের সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন। গত ০৩/০৩/২০১১ ইং তারিখ শ্রীমঙ্গল থানাধীন হোটেল বিরতি রুম নং ৩/২ এর মধ্যে ৩২৪০ টি জাল কোর্ট ফি ও জাল কোর্ট ফি বিক্রয়ের নগদ ৯৬২০/ টাকাসহ অভিযুক্তদের হাতে নাতে আটক করে র‌্যাব।
অবৈধভাবে জাল কোর্ট ফি ক্রয়-বিক্রয়ের অপরাধে উক্ত সাজা প্রদান করা হয়। সাজা ঘোষণার সময় অভিযুক্ত নজরুল ইসলাম হাজির ছিলেন তাকে সাজা পরোয়ানা মূলে জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়। অপর পলাতক আসামী রমেন্দ্র ভট্টাচার্যের প্রতি গ্রেফতারী পরোয়না ইস্যু করা হয়।
উল্লেখ্য যে, প্রতি বছর জাল কোর্ট ফি ও স্ট্যাম্প ক্রয় বিক্রয়ের দরুন বিচার বিভাগ হতে ১০ হাজার কোটি টাকা সরকার রাজস্ব বঞ্চিত হয়। যার ফলে, দেশের উন্নয়ন কর্মকান্ড ব্যহত হচ্ছে। মৌলভীবাজার জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেসীতে সুপ্রীম কোর্ট হতে সরবরাহকৃত ICD MULTI-FUNCTIONAL UV-FLASHLIGHT এর মাধ্যমে জাল কোর্ট ফি ও স্ট্যাম্প সনাক্তকরণ প্রক্রিয়া চলমান আছে এবং প্রয়োজনে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।সূত্র-পাতাকুরির দেশ