মৌলভীবাজারে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি:ঘুরে দেখেন জেলা প্রশাসক ড উর্মী বিনতে সালাম

0
39
মৌলভীবাজারে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি:ঘুরে দেখেন জেলা প্রশাসক ড উর্মী বিনতে সালাম

আমার সিলেট রিপোর্ট: মৌলভীবাজারে টানা ভারি বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে জেলার বিভিন্ন উপজেলাসহ পুরো জেলায় ৪৭৪ টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে, আক্রান্ত হয়েছে ২ লাখ ৮১ হাজার ৯২০ জন মানুষ। আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে ২০৪ টি। ইতিমধ্যে দলাই নদীর একটি বাঁধ ভেঙ্গে গেছে বলে সংবাদ পাওয়া গেছে।

জেলার সার্বিক বন্যা পরিস্থিতি আজ ১৯ জুন বুধবার মৌলভীবাজার জেলার সদর উপজেলার চাঁদনীঘাট ও মনুমুখ ইউনিয়ন পরিদর্শন করা হয়। এ সময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক), উপজেলা নির্বাহী অফিসার, মৌলভীবাজার সদর উপজেলা, সহকারী কমিশনার (ভূমি) সহ স্থানীয় জন প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।
বন্যাকবলিত মৌলভীবাজার সদর উপজেলার ২ নং মনুমুখ ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের শেওয়াইজুরি, সুজননগর ও মনুমুখ গ্রামের প্রায় ১৫০টি পানিবন্দী পরিবারকে মনুমুখ বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে এবং ৭ নং মাইজপাড়া আশ্রয়ণ প্রকল্পের ৮৭টি পরিবারকে মাইজপাড়া দাখিল মাদ্রাসায় স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

একই দিনে সদর উপজেলার বড়হাট, জুগিডর ও শান্তিবাগ এলাকা পরিদর্শন করেন জেলা প্রশাসক ও পৌর মেয়রসহ সরকারি কর্মকর্তা ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা।

এদিকে আশ্রয় গ্রহণকারী প্রত্যেক পরিবারের মাঝে শুকনো খাবার, পানি বিশুদ্ধকরন ট্যাবলেট ও পানির জার বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়াও উপজেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে ও উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের সহযোগিতায় ১নং খলিলপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন আশ্রয়ণ কেন্দ্রে মেডিকেল টিম সার্বক্ষণিক কাজ করছে।

সর্বশেষ তথ্যে জানা যায়, মৌলভীবাজারে বিভিন্ন আশ্রয় কেন্দ্রে অবস্থান করছে ১৫১৩ টি পরিবার। মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে ৭০ টি।

স্থানীয়দের সাথে কথা বললে জানা যায়, পাহাড়ি ছড়া ও নদী নালাগুলো যথারীতি খনন না করায় এবং সরু ব্রিজ ও কালভার্টের মাধ্যমে পাহাড়ি ঢল ও অতি বৃষ্টির পানি ভাটি অঞ্চলের দিকে নিষ্কাশনে সমস্যা হচ্ছে ফলে এই আকস্মিক বন্যা’র বৃদ্ধি হচ্ছে।