রাজনৈতিক পরিস্থিতি শান্তঃএটাই সংলাপের উপযুক্ত সময়

    0
    248

    আমারসিলেট24ডটকম, ১৪জুনঃ দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি এখন শান্ত। এটাই সংলাপের উপযুক্ত সময়। তাই দেশেরদুই প্রধান রাজনৈতিক দলকে এখনই সংলাপের ব্যাপারে আন্তরিক ভূমিকা পালন করতেহবে বলে মন্তব্য করেছেন বিবিসি বাংলাদেশ সংলাপের আলোচকরা।

    আজ শনিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর বিয়াম মিলনায়তনে বিবিসি বাংলাদেশ সংলাপে আলোচকরা এসব মন্তব্য করেন।আজকের সংলাপের এ পর্বে প্যানেল আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বেসামরিক বিমান চলাচলও পর্যবটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান হাফিজ উদ্দিনআহমেদ, পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের (পিআরআই) নির্বাহী পরিচালক ড. আহসান এইচমনসুর এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আমেনা মোহসিন।

    আলোচক ড. আহসান এইচ মনসুর বলেন, ”সংলাপ ছাড়া কোনো গতি নেই। তবে ইদানীং মনে হচ্ছেসংলাপে সরকারের খুব বেশি আগ্রহ নেই। যদি তাদের আগ্রহ থাকত, তাহলে এত দিনেএটা রাস্তায় গড়াত।”

    আহসান  আরও বলেন, ”টেকশই গণতন্ত্রের জন্য সংলাপ দরকার। আমার মনে হয়, এটাইসংলাপের মূল সময়। কারণ দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি এখন শান্ত আছে। এখনই তাদেরসংলাপের ব্যাপারে আন্তরিক হওয়া উচিত।”

    অধ্যাপক আমেনা মোহসিন বলেন, ”যখন দুটো রাজনৈতিক দল ইতিহাস নির্মাণ-বিনির্মাণ নিয়েবক্তব্য দিচ্ছে, তখন সংলাপের আগ্রহ প্রকাশ অবশ্যই ইতিবাচক।”

    আমেনা বলেন, ”যদিও আমরা আপাতদৃষ্টিতে সরকারকে এ বিষয়ে খুব বেশি আগ্রহপ্রকাশ করতে দেখেছি না, তবে পর্দার আড়ালে এটা হতে পারে। আমার মনে হয়, এখনইএটা নিয়ে এগোতে হবে।”

    বিএনপি নেতা হাফিজ উদ্দিন আহমেদ দাবি করেন, ”বিএনপির নেত্রী আন্তরিকতা নিয়েই সংলাপেরবিষয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। কিন্তু আওয়ামী লীগের নেতারা এটা নিয়ে নেতিবাচকবক্তব্য দিচ্ছেন।”

    হাফিজ উদ্দিন আরও বলেন, ”সরকারই আলোচনায় আগ্রহী নয়। তারা নির্বাচনের আগে বলল, এটা সংবিধান রক্ষায় করতে হচ্ছে। আর এখন বলেছে পাঁচ বছর আগে ক্ষমতা ছাড়বেনা। আসলে তারা জানে আলোচনায় বসলে মধ্যবর্তী নির্বাচন দিতে হবে। আরনির্বাচন দিলে তারা  কোনোদিন ক্ষমতায় আসতে পারবে না।”

    এ বিষয়ে পর্যবটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেন, ”সংলাপ সব সময়ই মঙ্গলজনক। তবে বিএনপিবিদেশীদের দেখাতেই সংলাপের কথা বলছে। আসলে তারা সংলাপ চায় না। এর আগেকোনোদিন তারা  সংলাপে বসেনি।” তবে এই মূহূর্তে সরকার সংলাপ বা মধবর্তীনির্বাচন নিয়ে চিন্তা করছে না বলেও জানান তিনি।

    বিবিসি মিডিয়া অ্যাকশন ও বিবিসি বাংলা যৌথভাবে অনুষ্ঠানটির আয়োজন করে।অনুষ্ঠানটি প্রযোজনা করেন ওয়ালিউর রহমান মিরাজ।সঞ্চালক ছিলেন আকবর হোসেন।