রাত পোহালেই হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের দুর্গাপূজা নিয়ে ব্যস্ত প্রতিমা শিল্পী ও পূজা আয়োজকরা

0
615

সুজয় কুমার বকসী,নড়াইল প্রতিনিধি: শুরু হতে যাচ্ছে দেশের হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সর্ববৃহৎ পূজার অনুষ্ঠান দুর্গাপূজা।দিকে দিকে শরৎ এর কাশফুল পূজারীদের জানান দিচ্ছে, রাত পোহালেই সনাতন ধর্মবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গাপূজা শুরু অতি সন্নিকটে।

দুর্গোৎসবে মন্ডপের অন্যতম আকর্ষণ বিভিন্ন রং বেরঙের প্রতিমা। আর নড়াইলসহ সারাদেশে এ প্রতিমা তৈরির কাজে এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রতিমা শিল্পীরা। অধিকাংশ মন্ডপে চলছে প্রতিমার রং ও বিভিন্ন সাজসজ্জ্বার কাজ।

প্রতিমা শিল্পীরা তাদের নিপুন হাতের ছোয়ায় প্রতিমাকে সুন্দর করে ফুটিয়ে তুলতে রাত-দিন কাজ করে চলেছেন , পুঁজা শুরুর আগেই তাদের সব কাজ শেষ করতে হবে ।
শুক্রবার ২০ অক্টোবর ষষ্টীপূজাঁ ও দেবীর বোধনের মধ্য দিয়ে শুরু হবে এ উৎসব। চলবে ২৪ অক্টোবর পর্যন্ত।
নড়াইল জেলার ৩ উপজেলায় ৫৭২টি মন্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। প্রতিটি পূজাঁ মন্ডপের জন্য সরকারি ভাবে ৫শত কেজি করে চাল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। সদর উপজেলায় ২৬৮টি মন্ডপে,লোহাগড়া উপজেলায় ১৫২টি মন্ডপে এবং কালিয়া উপজেলায় ১৫২ টি মন্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে।

শহর-গ্রামাঞ্চলের পূজাঁ মন্ডপ গুলোতে চলছে শেষ সময়ের প্রস্তুতিমূলক নানা কর্মকান্ড। পূজা মন্ডপগুলোকে বাঁশ-শোলাসহ বিভিন্ন উপকরণ দিয়ে সাজাতেও ব্যস্ত অন্য কারিগররা।শহর ও উপজেলা সদরের মন্ডপগুলোতে চলছে মনোরম আলোকসজ্জ্বা করার কাজ।

আর এ সম্প্রদায়ের সব বয়সের লোকজন দিন গুনছেন আনন্দ উৎসবের।জেলা সদরের রুপগঞ্জসহ বিপনী বিতানগুলোতে স্বর্ণের ও ইমিটেশনের গয়না, নতুন জামা,শাড়ী,জুতা, স্যান্ডেল, পাঞ্জাবী কিনতে ভীড় জামাচ্ছেন সনাতন ধর্মালম্বীরা।

জেলা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি অশোক কুন্ডু জানান, নড়াইল একটি ছোট জেলা হলেও এবছর জেলায় ৫৭২টি পূজামন্ডপে শারদীয় দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে।সকল প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন, প্রশাসন থেকে সকল প্রকার সহযোগীতার করছে, আশাকরি প্রতিবছরের মত এবারও শান্তি-শৃংখলার ও উৎসবের মধ্য দিয়ে পূজাঁ অনুষ্ঠিত হবে।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আশফাকুল হক চৌধুরী বলেন, উৎসবমুখর পরিবেশে সুষ্ঠুভাবে শারদীয় দুর্গাপূজা আয়োজনের লক্ষ্যে সব ধরনের প্রশাসনিক পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।এ লক্ষ্যে প্রশাসন এবং আইনশৃংখলা রক্ষা বাহিনী সমন্বিতভাবে দায়িত্ব পালন করবে।

পুলিশ মোসা: সাদিরা খাতুন জানান, পুলিশের পক্ষ থেকে জেলায় দুর্গাপূজার এই উৎসবে আইন-শৃংখলা ঠিক রাখতে ব্যাপক প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।

পূজামন্ডপের সার্বিক নিরাপত্তাসহ সুষ্ঠুভাবে দুর্গাপূজা উদযাপনের জন্য পূজা মন্ডপ কমিটির নেতৃবৃন্দের সঙ্গে পুলিশ বিভাগের পক্ষ থেকে মত বিনিময় করা হয়েছে।মন্ডপগুলোতে সশস্ত্র পুলিশ প্রহরা ছাড়াও সাদা পোশাকে পুলিশ নিয়োজিত থাকবে। এ ছাড়া র‌্যাব, আর্মড পুলিশ ও মন্ডপে মন্ডপে আনসার ও পুলিশ মোতায়েন থাকবে।মন্ডপগুলোকে সিসি ক্যামেরার আওতায় আনার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।