শিক্ষার্থীদের বৃত্তি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্ট্র

    0
    515

    মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টের নিজস্ব তহবিল থেকে ‘বঙ্গবন্ধু ছাত্রবৃত্তি’ নামের এই বৃত্তির অর্থায়ন করা হবে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে সরকার প্রধান ও মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্ট্রের বোর্ড অফ ট্রাস্ট্রিজের চেয়ারম্যান শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়। বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব আবুল কালাম আজাদ এ বিষয়ে সাংবাদিকদের জানান।

    বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী মুক্তিযোদ্ধাদের অবদানের কথা স্মরণ করেন।

    রাজধানীর মোহাম্মদপুরের গজনবী সড়কে নির্মাণাধীন ভবনের দোকান ও বাণিজ্যিক ব্যবহারের স্থান এবং ফ্লাট নিয়ে আলোচনায় শেখ হাসিনা বলেন, এক্ষেত্রে  মুক্তিযোদ্ধাদের অগ্রাধিকার দিতে হবে।

    বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীকে জানানো হয়, মুক্তিযোদ্ধাদের বিশ্রামাগারের জন্য ১৫ তলা ভবনের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। ২০১৩ সালের ডিসেম্বরে এই নির্মাণ কাজ শেষ হবে। ভবনের প্রথম থেকে পঞ্চম তলা পর্যন্ত বাণিজ্যিক ব্যবহারের জন্য স্থান রাখা হচ্ছে। ষষ্ঠ তলায় মুক্তিযোদ্ধাদের বিনোদনের জন্য স্থানসহ চিকিৎসকদের চেম্বার হবে। সপ্তম থেকে ১৩ তলা পর্যন্ত এক হাজার ১২২ বর্গফুটের ৮৪টি ফ্লাট হবে। 

    মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্ট্রের বোর্ড অফ ট্রাস্ট্রিজের ৬৫তম সভায় মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ও বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান এ বি তাজুল ইসলাম, ট্রাস্ট্রি সংসদ সদস্য মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম, সোহরাব আলী সানা, ফজলে রাব্বী মিয়া, এ কে এম এ আউয়াল, ব্যবস্থাপনা পরিচালক মেজর জেনারেল এ কে মোহাম্মদ আলী শিকদার, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব শেখ মো. ওয়াহিদ উজ জামান, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব মোল্লা ওয়াহিদুজ্জামান, প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।