শ্রীমঙ্গলে এক ব্যক্তিকে ৮ ঘন্টা আটকে রেখে নির্যাতনের অভিযোগ

0
379

আমার সিলেট রিপোর্ট: মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল আশিদ্রোন ইউনিয়নের জামসি গ্রামের এক ব্যক্তিকে কৌশলে তুলে নিয়ে ৮ ঘন্টা আটকে রেখে শারীরিক নির্যাতন, চাঁদা দাবি ও উলঙ্গ করে ছবি ভিডিও করার অভিযোগ উঠেছে। কি কারনে এমন ঘটনা ঘটেছে তা ভিকটিম জানাতে পারেনি।
এনিয়ে নির্যাতিত ব্যক্তিকে রোববার সন্ধ্যায় শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। নির্যাতনের অভিযোগকারী ব্যক্তির নাম পরিমল দাস (৩৭) পিতা গির্জা কুমার দাস জামসি, আশিদ্রোন, শ্রীমঙ্গল।
তিনি তার বক্তব্যে বলেন, ১৯ নভেম্বর রোববার সকাল ৯ টার দিকে ধান কাটা অবস্থায় একই গ্রামের মুজিব মিয়া (৩৫) পিতা মুসাব্বির মিয়া অপর অজ্ঞাত ব্যক্তিসহ মোটরসাইকেল যুগে এসে তার বাবার সাথে কথা বলার বাহানা দিয়ে আমাকে তার বাড়িতে জোরপূর্বক নিয়ে যায় এবং একটি ঘরে প্রায় ৮ ঘণ্টা আটকে রেখে মুজিব মিয়া সহ তিনজন শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করে, মারপিট করে এ সময় আমাকে বিভিন্ন মানুষের বিরুদ্ধে মিথ্যা সাক্ষ্য দিতে বলে, নতুবা আমাকে মেরে ফেলবে। তিনি আরো বলেন, এ সময় মুজিব মিয়া ৬০-৭০ হাজার টাকা দাবি করে বলে টাকা দিলে আমাকে ছেড়ে দিবে। এসময় আমাকে জোরপূর্বক স্বীকারোক্তি নিতে মারপিট করে বিভিন্ন ধরনের কথাবার্তা রেকর্ড করে এমনকি উলঙ্গ করে ছবি ভিডিও করে। আমাকে হুমকি দিলে আমি সুদে টাকা এনে তার কাছ থেকে ছাড়া পেতে চেষ্টা করি কিন্তু পাইনি। পরে একইদিন বিকাল পাঁচটার দিকে আমার বাড়ির পাশে আমাকে রেখে যায় পরে আমার ভাই নির্মল দাসসহ এলাকাবাসী আমাকে হাসপাতালে ভর্তি করে।
এ ব্যাপারে নির্যাতিত পরিমলের ভাই নির্মল দাসের সাথে কথা হলে তিনি জানান,আমরা প্রাথমিক বিষয়টা জানিনা পরে শুনতে পেরেছি আমার ভাইয়ের অবস্থা খারাপ দেখে স্থানীয় মেম্বার ও চেয়ারম্যান কে বিষয়টি অবগত করেছি এবং আমার আহত ভাইকে হাসপাতালে ভর্তি করেছি।
এক প্রশ্নের জবাবে নির্মল দাস জানান, এব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে। তবে তাৎক্ষণিক এই ঘটনার বিস্তারিত সত্যতা নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি।