শ্রীমঙ্গলে চা বাগানের বাংলোতে ডাকাতির ঘটনায় মালামালসহ গ্রেফতার-৪

0
626

আমার সিলেট রিপোর্ট: মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল থানাধীন সাতগাঁও চা বাগানের এসিস্টেন্ট ম্যানেজারের বাংলোতে ডাকাতির ঘটনায় লুষ্ঠিত মালামালসহ আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ৪ সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে মর্মে জেলা পুলিশের কার্যালয়ে প্রেস রিলিজ করেছে মৌলভীবাজার জেলা পুলিশের কর্মকর্তা এসপি মনজুর রহমান, পিপিএম-বার। এ সময় জেলার অন্যান্য পুলিশের কর্মকর্তা সহ শ্রীমঙ্গল থানার ওসি জাহাঙ্গীর হোসেন সরদারও উপস্থিত ছিলেন।

প্রেস রিলিজ থেকে জানা যায়,গত ২৩ নভেম্বর সারাদিন কুমিল্লা জেলার কোতায়ালী থানা এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর থানা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ১। সবুজ মিয়া (৪৭), ২। বশির আহমদ (৩৫), ৩। সফিক উদ্দিন (৪০) এবং মিঠুন দাস (২৫) নামে ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়।
তাদের কাছ থেকে সাতগাঁও চা বাগানের বাংলো থেকে লুটকৃত স্বর্ণালংকার, নগদ টাকা এবং অন্যান্য মালামাল। উদ্ধার করা হয়েছে।

ডাকাতির সংবাদ পাওয়া মাত্রই শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জের নেতৃত্বে থানা পুলিশ মাঠে কাজ শুরু করে।
ডাকাতির ঘটনার রহস্য উদঘাটন, আসামিদের গ্রেফতার এবং লুষ্ঠিত মালামাল উদ্ধারে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ আমিনুল ইসলাম এবং শ্রীমঙ্গল থানার একটি চৌকস দল অভিযান শুরু করে।

আরো জানান,গোপন সোর্স এবং তথ্যপ্রযুক্তির সহযোগিতায় কুমিল্লা জেলার কোতয়ালী থানার অন্তর্গত ২নং দুর্গাপুর ইউনিয়নের নিশ্চিন্তপুর গ্রামের জনৈক হাজী মোস্তফার মালিকানাধীন বাড়িতে অভিযান পরিচালনা করে উক্ত ডাকাতির ঘটনায় জড়িত ১। সবুজ মিয়া (৪৭), ২। বশির আহমদ (৩৫), ৩। সফিক উদ্দিন (৪০) গনদের গ্রেফতার করা হয়। ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত ৩ জন সাতগাঁও চা বাগানের সহকারী ব্যবস্থাপকের বাংলোতে ডাকাতির ঘটনায় জড়িত মর্মে স্বীকার করে।

গ্রেফতাকৃত আসামি সবুজ মিয়ার কাছ থেকে ডাকাতির ঘটনায় লুষ্ঠিত ৮ (আট) আনা ওজনের ০১টি স্বর্ণের চেইন ও নগদ ৩,০০০/- টাকা, বশির আহমেদের কাছ থেকে ডাকাতির ঘটনায় লুষ্ঠিত ২ আনা ওজনের ১টি স্বর্ণের আংটি, ১টি সিলভার রংয়ের নেভিফোর্স ব্র‍্যান্ডের হাত ঘড়ি ও নগদ ৩,০০০/-টাকা এবং সফিক উদ্দিনের কাছ থেকে ডাকাতির ঘটনায় লুন্ঠিত ১টি গোল্ডেন কালারের মিমা ব্র‍্যান্ডের হাত ঘড়ি ও নগদ ৩,০০০/-টাকা জব্দ করা হয়।

পরবর্তীতে গ্রেফতাকৃত আসামিরা জানায় ডাকাতির ঘটনায় লুষ্ঠিত স্বর্ণালংকার ব্রাহ্মনবাড়িয়া জেলার অন্তর্গত নাসিরনগর থানাধীন ধরমন্ডল বাজারস্থ শুভা শিল্পালয় নামক জুয়েলারী দোকানে বিক্রি করেছেন। উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে ডাকাতির ঘটনায় লুণ্ঠিত মালামাল উদ্ধারের লক্ষ্যে গ্রেফতারকৃত আসামীগনসহ নাসিরনগর থানাধীন ধরমন্ডল বাজারস্থ শুভা শিল্পালয় নামক জুয়েলারী দোকানে অভিযান পরিচালনা করে দোকান মালিক স্বর্ণালংকার ক্রয়কারী মুজিবর রহমান (৪৫) পালিয়ে যায়। আমরা তার সহযোগী দোকান কর্মচারী মিঠুন দাস (২৫) কে আটক করি। গ্রেফতারকৃত আসামীদের দেওয়া তথ্য এবং তাদের সনাক্তমতে আটককৃত মিঠুন দাসকে লুন্ঠিত স্বর্ণালংকারের বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদে আসামীদের কাছ থেকে ডাকাতির ঘটনায় লুণ্ঠিত স্বর্ণ ক্রয়ের কথা স্বীকার করে। পরে সেখান থেকে ১টি সাদা রংয়ের কাগজের প্যাকেটে রক্ষিত অবস্থায় ৮ আনা ওজনের ১টি স্বর্ণের চেইন, ২ আনা ওজনের ১ জোড়া স্বর্ণের কানের দুল, ২ আনা ওজনের ১ জোড়া স্বর্ণের কানের রিং জব্দ করা হয়।

প্রেস রিলিজ থেকে আরো জানা যায়,গ্রেফতারকৃত আসামীগন আন্তঃ জেলা ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য। তাদের বিরুদ্ধে একাধিক ডাকাতির মামলা রয়েছে। গ্রেফতারকৃত আসামীগনকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সাতগাঁও চা বাগানে সহকারী ব্যবস্থাপকের বাংলোতে ডাকাতির ঘটনার জড়িত থাকার বিষয়ে স্বীকার করেছে।

উল্লেখ্য, গত ২২ নভেম্বর রাত অনুমান ১.৩০ ঘটিকা থেকে রাত ০৩ টা পর্যন্ত মুখোশ পরে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে একটি ডাকাতদল সাতগাঁও চা বাগানের এসিস্টেন্ট ম্যানজোর আব্দুল মতিনের বাংলোতে প্রবেশ করে আব্দুল মতিন এবং তার স্ত্রী ও অন্য সদস্যদরে হাত-পা বেঁধে ৫ ভরি স্বর্ণালংকার, নগদ ৮০ হাজার টাকা, মোবাইল ফোন এবং অন্যান্য মালামাল লুট করে। এ ঘটনায় শ্রীমঙ্গল থানায় একটি ডাকাতি মামলা রুজু হয়। (মামলা নং ২০, তারখি- ২২/১১/২০২৩ ইং ধারা: ৩৯৫/৩৯৭ পেনাল কোড)।