শ্রীমঙ্গল পিআইও’র বিরুদ্ধে ত্রাণ বিক্রির অভিযোগঃকর্মকর্তার অস্বীকার

0
284
শ্রীমঙ্গল পিআইও’র বিরুদ্ধে ত্রাণ বিক্রির অভিযোগঃকর্মকর্তার অস্বীকার
শ্রীমঙ্গল পিআইও’র বিরুদ্ধে ত্রাণ বিক্রির অভিযোগঃকর্মকর্তার দাবী ত্রাণ নিজের টাকার। ছবি প্রতিনিধি

নূর মোহাম্মমদ সাগর,শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি: বন্যাদুর্গত ও অসহায় মানুষের বরাদ্দকৃত ত্রাণসামগ্রী বাজারে বিক্রি করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মো. তরিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে।

স্থানীদের অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, সরকারের পক্ষ থেকে বন্যার্তদের জন্য ত্রাণ বিতরণের নির্দেশনা থাকা সত্বেও তা অমান্য করে বাজারে বিক্রি করে দিয়েছেন এই প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা। এতে সহায়তা থেকে বঞ্চিত হয়েছেন অসহায় বন্যাদুর্গত গরিবরা।

রোববার (১০অক্টোবর ২০২২) সরেজমিনে শ্রীমঙ্গল সেন্টাল রোডের কয়েকটি দোকানে গিয়ে সরকারি ত্রাণসামগ্রী (চিড়া ও মুড়ি) পাওয়া গেছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক দোকান মালিক জানিয়েছেন, “গরিবের এসব ত্রাণ কিনতে চাননি তিনি। এক প্রকার জোর করে রেখে গেছেন উপজেলা খাদ্যগুদামের লোকজন। বিক্রি হলে টাকা নেবেন বলেছেন তারা।”

ওই ব্যবসায়ী আরো বলেন,’আমার দোকানে ৯ বস্তা মুড়ি রেখে গেছেন উপজেলা খাদ্যগুদামের লোকেরা। তবে চিড়া অন্য দোকানে বিক্রি করেছেন তারা।’

এ ব্যাপারে শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মো. তরিকুল ইসলাম বলেন, ‘বস্তায় কি সরকারি ত্রাণ লিখা আছে?  যেসব ত্রাণ বিক্রি করা হয়েছে সেগুলো আমি বালাগঞ্জ উপজেলা থেকে কিনে এনেছি। এগুলো আমার টাকায় কিনা ছিলো। নষ্ট হয়ে যাবে বলে আমি তা বিক্রি করে দিয়েছি।

সরকারি ত্রাণ বিক্রয়ের নিয়ম আছে কি না মুঠোফোনে জানতে চাইলে শ্রীমঙ্গল উপজেলার নির্বাহী অফিসার আলী রাজিব মাহমুদ মিঠুন বলেন, “এই বিষয় আমি শুনেছি। সরকারী কোনো ত্রাণ সামগ্রী বিক্রি করার কোন নিয়ম নেই।এমন কোন ঘটনা ঘটে থাকলে আমি উদ্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলাপ করে ব্যবস্থা নেব।”