সাকার রায় প্রকাশ নিয়ে অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্র চলছে

    0
    214

    আমারসিলেট 24ডটকম,০২অক্টোবর : মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় অভিযুক্ত বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর রায় প্রকাশ নিয়ে মস্তবড় ইনভেস্টমেন্ট ও ষড়যন্ত্র বলে মন্তব্য করেছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১। একই সঙ্গে এ ঘটনা  ট্রাইব্যুনালের কার্যক্রমকে বিতর্কিত করার হীন চেষ্টা বলেও উল্লেখ করা হয়।

    আজ বুধবার সকালে প্রসিকিউশন এ বিষয়ে ট্রাইব্যুনালের দৃষ্টি আকর্ষণ করলে বিচারপতি মো. জাহাঙ্গীর হোসেন এ মন্তব্য করেন। পাশাপাশি প্রসিকিউশনকে এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট প্রমাণসহ লিখিত আবেদন করারও নির্দেশ দেয়া হয়।উল্লেখ্য, মঙ্গলবার বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সংসদ সদস্য সাকা চৌধুরীর রায় ঘোষণার পর বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি খন্দকার মাহবুব হোসেন মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচার কাজের সঙ্গে সম্পৃক্তদের বিচার করা হবে বলে হুমকি দেন।বিষয়টি নজরে আনলে বিচারপতি জাগাঙ্গীর হোসেন ক্ষোভ করে বলেন, দেশের মানুষকে বোকা বানানো হচ্ছে। আমাদের বিতর্কিত করার চেষ্টা চলছে। এর পেছনে মস্ত বড় বিনিয়োগ এবং ষড়যন্ত্র রয়েছে।

    এ সময় তিনি ট্রাইব্যুনাল-১ এর দেয়া সকল রায় ভালোভাবে পড়ে দেখার আহ্বান জানান সবাইকে।আজ বুধবার ট্রাইব্যুনালের কার্যক্রম শুরু হলে চীফ প্রসিকিউটর গোলাম আরিফ টিপু ট্রাইব্যুনালের উদ্দেশে বলেন, সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীর রায় নিয়ে তার পরিবার, আইনজীবী ও বিভিন্নজন আদালত অবমাননাকর মন্তব্য করেছেন। এখানে রায় বিতর্কিত করার গভীর ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। প্রসিকিউটর পত্রিকায় প্রকাশিত বিভিন্ন রিপোর্ট ট্রাইব্যুনালে উপস্থাপন করেন এবং সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান।

    এ সময় প্রসিকিউটর জেয়াদ আল মালুম ট্রাইব্যুনালে বলেন, সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীর স্ত্রী, তার পুত্র ও তাদের আইনজীবী রায় নিয়ে মিথ্যা অপপ্রচার করেছেন যা আদালত অবমাননাকর। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া প্রয়োজন।প্রসিকিউশনের জবাবে ট্রাইব্যুনলের দ্বিতীয় বিচারপতি মো. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, বিএনপি নেতা সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীর রায় প্রকাশ নিয়ে অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্র চলছে। মানুষকে বোকা বানানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। আসলে অত্যন্ত দুঃখজনক। এর পেছনে ষড়যন্ত্র আছে। তিনি এ বিষয়ে লিখিত আবেদন করার জন্য প্রসিকিউশনকে নির্দেশ দেন।