সাবেক সাংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মমতাজকে হত্যার দায়ে নয়জনের যাবজ্জীবন

    0
    589

    নাটোর-১ আসনের সাবেক সাংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি মমতাজউদ্দিনকে হত্যার দায়ে নয়জন আসামিকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তিন আসামিকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে। আজ বুধবার সকালে রাজশাহীর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক একরামুল হক চৌধুরী ওই হত্যা মামলায় এই রায় দেন।
    যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত নয় আসামি হলেন: শামীম হোসেন (৩৫), আরিফ (৪৪), বাবু (৩০), আইনাল হোসেন (৪৮), আসলাম হোসেন (৪২), মিঠু (২৮), সুজন (৩৪), ফারুক বাবু (৩২) ও পলাতক আলম হোসেন (৩৬)। একই সঙ্গে তাঁদের ৩০ হাজার টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরও ছয় মাস করে কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়। খালাস পাওয়া তিন আসামি হলেন: আনিসুর রহমান (৬২), শুকুর বাবু (৩২) ও সান্টু (৩৫)। যাবজ্জীবনপ্রাপ্ত নয় আসামির মধ্যে প্রথম আটজন জামিনে ছিলেন।
    ট্রাইব্যুনালের বিশেষ সরকারি কৌঁসুলি এনতাজুল হক রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘আমরা আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড আশা করেছিলাম। উচ্চ আদালতে আপিল করব কি না, পরে আলোচনা করে তা ঠিক করা হবে।’
    মামলার বাদী নিহত মমতাজউদ্দিনের ভাই আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘এ রায়ে আমরা সন্তুষ্ট হতে পারিনি। আমরা রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করব।’
    ২০০৩ সালের ৬ জুন রাতে দুর্বৃত্তদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে খুন হন মমতাজউদ্দিন। এ ঘটনায় করা মামলাটি চাঞ্চল্যকর হিসেবে ঘোষণা করা হলেও ২০০৪ সালে হাইকোর্ট এটি স্থগিত করেন। দীর্ঘ আট বছর স্থগিত থাকার পর গত ৪ নভেম্বর পুনরায় এই মামলার বিচার শুরু হয়। গত ২৬ ফেব্রুয়ারি যুক্তিতর্ক শুনানি শেষে রাজশাহীর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল ৫ মার্চ রায়ের তারিখ নির্ধারণ করেন। তিন দফা তারিখ পরিবর্তন করে আজ বুধবার এ রায় দেওয়া হলো।

    momtaj mp