সিপিবি-বাসদের জনসভায় হামলাঃছাত্রলীগ করলে ব্যবস্থা

    0
    213

    আমারসিলেট 24ডটকম , সেপ্টেম্বর  : সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিমের ওপর হামলার পর সন্ধ্যায় ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগ বলেন, সিলেটে সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিমের ওপর হামলায় ছাত্রলীগের কেউ যদি জড়িত থাকে, তবে তার বিরুদ্ধে অবশ্যই সাংগঠনিকভাবে ব্যবস্থা নেয়া হবে।সিলেটে কোর্ট পয়েন্ট চত্বরে বিকালে সিপিবি-বাসদের জনসভায় হামলা হয়। ডাকসুর সাবেক ভিপি সেলিম সাংবাদিকদের বলেন, হামলাকারীদের মুখে স্লোগান ছিল জয় বাংলা ।ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি সোহাগ বলেন, আমরা হামলার বিষয়টি জেনেছি এবং খোঁজ খবর নিচ্ছি।

    তবে ছাত্রলীগ হামলা করেছে কি না, তা এখনো জানি না।সিলেট জেলা সিপিবির সভাপতি বেদানন্দ ভট্টাচার্য সাংবাদিকদের বলেন, সশস্ত্র হামলাকারীরা ছাত্রলীগেরই কর্মী।হামলার ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক শেখ রাসেল ঘটনাটি হয়ত ভূল বোঝাবুঝির জন্য ও হতে পারে।সিপিবির সঙ্গে আমাদের কোনো ঝামেলা নেই। তাদের ওপর হামলা করার কোনো কারণ থাকতে পারে না।প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, পুলিশের উপস্থিতিতে জনসভামঞ্চে এই হামলা হয়। তারা চেয়ার, মাইক ভাংচুর করে, ব্যানার ছিঁড়ে ফেলে। পরে পুলিশ ও সমাবেশকারীদের ধাওয়ায় তারা চলে যায়।

    সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার এস এম রোকন উদ্দিন সাংবাদিকদের বলেন, হামলাকারীদের ঠেকাতে র‌্যাব-পুলিশ অন্তত ৫০ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে।হামলা থামাতে গিয়ে কোতোয়ালি থানার ওসি আক্তার হোসেন আহত হয়েছেন বলে জানান তিনি।হামলার প্রতিবাদে সোমবার সিলেটে আধাবেলা হরতাল ডেকেছে সিপিবি ও বাসদ।

    বিএনপি এই হরতাল সমরতন করেছে ।হামলার ব্যাপারে সিপিবি সভাপতি সেলিম বলেন, সরকারের ছত্রছায়ায় এ ন্যক্কারজনক ঘটনা ঘটানো হয়েছে।বাসদ সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান বলেন, আগামী দিনে অশান্তিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করার লক্ষ্যেই এমন মহড়া দিচ্ছে সরকার দলের ক্যাডাররা।