সিলেটে ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব নিয়ে বৈঠকেঃআপাতত সালেহ

    0
    118

    আমারসিলেট24ডটকম,১১জানুয়ারীঃ সিলেট সিটি করপোরেশনের আরিফুল হক চৌধুরীকে বরখাস্ত করার কারনে আজ রোববার ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব নিয়ে কাউন্সিলরদের একাংশের বাধার মুখে পড়েন প্যানেল মেয়র-১ রেজাউল হাসান লোরেন। লোদিকে মেয়রের রুমে ঢুকতে দেন নি বলে একটি সূত্রে জানা গেছে।

    সুত্র জানায় সকাল থেকে ভারপ্রাপ্ত মেয়র দাবি করে মেয়রের চেয়ারে বসে দায়িত্ব পালন করছেন প্যানেল মেয়র-২ এডভোকেট সালেহ আহমদ। এ নিয়ে সালেহ ও লোদী পক্ষের কাউন্সিলরদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। পরে কিছু স্থানীয় মুরুব্বীদের মাধ্যমে উত্তেজনার সমস্যা সমাধানে লোদীসহ উপস্থিত কাউন্সিলররা একটি বৈঠকে বসে।

    আরও জানা যায়,আজ সকাল ১১টার দিকে কয়েস লোদীকে নিয়ে ৫ জন মুরব্বী নগরভবনে যাওয়ার অনুমতি পায় পুলিশ থেকে। অনুমতি পেয়ে কয়েস লোদী মুরব্বিদের নিয়ে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার রুমে যান এবং বহিরাগতদের প্রবেশ নিয়ে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়েন লোদী সমর্থিত কাউন্সিলর ও ইলিয়াছুর রহমান ইলিয়াছ ও সালেহ সমর্থিত ফরহাদ চৌধুরী শামীমের। পরে অন্যান্য কাউন্সিলরদের মধ্যস্থতায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। পরে কাউন্সিলরদের মধ্যে একটি সমজোতা বৈঠক হয়।

    বৈঠকের সিদ্ধান্ত মতে ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব আপাতত সালেহ আহমদ চৌধুরী পালন করবেন বলে জানা যায়।দুই পক্ষের র্বদ্ধদ্বার বৈঠক শেষে সমঝোতার ভিত্তিতে এ সিদ্ধান্ত হয়।
    বৈঠকে থেকে নগরভবনে অপেক্ষমান সাংবাদিকদের জানান, দুই পক্ষের সমঝোতার ভিত্তিতে আপাতত সালেহ আহমদ চৌধুরীকেই ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব পালন করতে বলা হয়েছে।

    বৈঠকে উপস্থিত একজন কাউন্সিলর জানান- আইন ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপন নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। ভারপ্রাপ্ত মেয়র কে হবে তা আইনের মাধ্যমেই সমাধান হবে। আইন যার পক্ষে থাকবে তিনিই ভারপ্রাপ্ত মেয়র হবেন। তবে সৃষ্ট জটিলতা সমাধান কল্পে আপাতত সালেহ আহমদ চৌধুরীই ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব পালন করবেন বলে সিদ্ধান্ত হয়েছে।

    জানা গেছে, সিলেট সিটির নির্বাচিত মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীকে পলাতক থাকার কারনে সাময়িক বরখাস্ত করে প্যানেল মেয়র-১ কে ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব দেন মন্ত্রণালয়।আজ সকালে প্যানেল মেয়র-২ সালেহ আহমদ নিজেকে ভারপ্রাপ্ত মেয়র দাবি করে মেয়রের চেয়ারে বসে পরেন।
    প্যানেল মেয়র-১ রেজাউল হাসান কয়েস লোদী নগরভবনে আসলে তাকে মেয়রের কার্যালয়ে ঢুকতে দেননি একটি পক্ষের সমর্থকরা।এমন অভিযোগ করেছে কয়েস লোদী সমর্থিত লোকজন ।