সীতাকুণ্ডে ডিপোর আগুন নিয়ন্ত্রণেঃসর্বশেষ নিহতের সংখ্যা-৪৩

0
332
সীতাকুণ্ডে ডিপোর আগুন নিয়ন্ত্রণেঃসর্বশেষ নিহতের সংখ্যা-৪৩
সীতাকুণ্ডে ডিপোর আগুন নিয়ন্ত্রণেঃসর্বশেষ নিহতের সংখ্যা-৪৩

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ সর্বশেষ তথ্যে ৪৩ জনের মৃত্যু ও প্রায় ৪০০ শতাধিক আহতের ঘটনায় সীতাকুণ্ডের বিএম কনটেইনার ডিপোতে অগ্নিকাণ্ডের ৬১ ঘণ্টা পর আগুন নিয়ন্ত্রণে।

মঙ্গলবার ৭ জুন সকালে টানা তৃতীয় দিনের মতো ফায়ার সার্ভিস সদস্যরা কনটেইনার গুলোর ওপর পানি ছিটিয়ে চলেছেন। কিছু কনটেইনারে কাপড়ের জিনিসপত্র আছে। এই ডিপো থেকে আর কোনো বড় ধরনের বিপদ হওয়ার আশঙ্কা নেই।

মঙ্গলবার ডিপোর সামনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন সেনাবাহিনীর ২৪ পদাতিক ডিভিশনের ১৮ ব্রিগেডের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আরিফুল ইসলাম হিমেল।

তিনি বলেন, “ঢাকা থেকে সেনাবাহিনীর একটি বিশেষজ্ঞ টিম এসেছে। ডিপোর ভেতরে বিপদজনক কিছু আছে কি না তারা তা নিয়ে কাজ করছেন। সরেজমিন তারা পরিদর্শন করছেন। তাদের সঙ্গে স্পেশাল লোকজন আছেন। তারা বিষয়গুলো দেখছেন। তাদের কাছে ফাইনাল রিপোর্ট পাব। তাদের কাছ থেকে জানতে পারব কোনো বিপদ হওয়ার আশঙ্কা আছে কি না। আপাত দৃষ্টিতে আমরা বলতে পারি, ডিপোর আগুন পুরোপুরি কন্ট্রোলে চলে এসেছে। এখন কিছু ধোঁয়া বের হচ্ছে। ভয়ের কিছু নেই বলে আমি মনে করি।

তিনি আরও বলেন, এখানে যাতে আর হতাহতের ঘটনা না ঘটে সে বিষয়টিকে আমরা প্রথম গুরুত্ব দিচ্ছি। যে কনটেইনার থেকে ধোঁয়া বের হচ্ছে সেগুলোর কাছে কম যাওয়ার চেষ্টা করছি। আমরা আর কোনো হতাহত চাইনি।

অপরদিকে ফায়ার সার্ভিস সুত্রে জানা যায়, গত শনিবার রাত ১০ টার দিকে ডিপো লোডিং স্টেশন এলাকায় অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। এর দেড় ঘণ্টা পর একটি কনটেইনারে থাকা রাসায়নিক বিস্ফোরিত হয়ে ফায়ার সার্ভিসের ৯ সদস্যসহ মোট ৪৩ জন নিহত হন। আহত হয়েছেন চার শতাধিক মানুষ।

গণমাধ্যম সুত্রে প্রাপ্ত তথ্যে স্মার্ট গ্রুপের সহযোগী প্রতিষ্ঠান ও আওয়ামী লীগ নেতা মুজিবুর রহমানের মালিকানাধীন বিএম কনটেইনার ডিপো। কার গাফিলতিতে এমন বিপর্যয় ঘটেছে বা কোন পরিকল্পিত ঘটনা কি না তদন্ত জরুরী। এ ঘটনায় এখনো কোন মামলার সংবাদ পাওয়া যায়নি।