সুদ মওকুফের মাধ্যমে ঋণ আদায়ের নীতিমালা প্রণয়ন

    0
    718

    আমারসিলেট 24ডটকম,০৬অক্টোবর:আজ রোববার জাতীয় সংসদে লিখিত প্রশ্নোত্তর পর্বে সংসদ সদস্য পিনু খানের লিখিত প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত সংসদে  তথ্য দেন, চলতি বছরের জুন মাস পর্যন্ত দেশে মোট ব্যাংক অ্যাকাউন্টের সংখ্যা ৭ কোটি ৮ লাখ ৭৫ হাজার ১৩৩। বর্তমানে দেশে ঋণ খেলাপির সংখ্যা ১ লাখ ৫২ হাজার ৭২৩ জন।
    অর্থমন্ত্রী জানান আব্দুল মুহিত বলেন , খেলাপী ঋণ আদায়ের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকে গঠিত টাস্কফোর্স সেলের মাধ্যমে ব্যাংকসমূহের খেলাপী ঋণ আদায়ের কার্যক্রম নিবিড়ভাবে তদারকি করা হচ্ছে।.আদালতের বাইরে বিকল্প পদ্ধতিতে বিরোধ নিষ্পত্তির মাধ্যমে শ্রেণীকৃত ঋণের বিপরীতে আদায় ত্বরান্বিত, ঋণ পুন:তফসিলীকরণ নীতিমালাকে আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত ও সুদ মওকুফের মাধ্যমে খেলাপি ঋণ আদায় কার্যক্রমকে জোরদারের নীতিমালা প্রণয়ন করা হয়েছে।

    এছাড়া ব্যাংক সমূহে এজেন্ট নিয়োগ ও রাষ্ট্রয়াত্ব বাণিজ্যিক ব্যাংকসমূহের সঙ্গে এমওইউ সম্পাদনের মাধ্যমে খেলাপি ঋণ আদায়ের কার্যক্রম চালানো হচ্ছে।
    সংসদ সদস্য রাশেদা বেগম হীরার আর এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, সোনালী, রূপালী ও অগ্রণী ব্যাংক লাভজনক প্রতিষ্ঠান। ২০১০ ও ২০১১ সালে অডিটেড ব্যালেন্স সিট অনুসারে সোনালী ব্যাংকের অর্জিত মুনাফার পরিমাণ ২৭৩ দশমিক ৭৬ এবং ৯৯৫ দশমিক ৭২ কোটি টাকা। অগ্রণী ব্যাংকের মুনাফার পরিমাণ ৩৫১ দশমিক ৬৮ এবং ২৪৯ দশমিক ৯৯ কোটি টাকা। রূপালী ব্যাংক পরিমাণ ৬০ দশমিক শূন্য ৩ এবং ১০৯ দশমিক ১৩ কোটি টাকা মুনাফা করেছে বলে তিনি জানান।

    অর্থ মন্ত্রী আরও জানান, ২০১২ সালে রূপালী ব্যাংক লিমিটেড ১২০ দশমিক ৫৭ কোটি টাকা লাভ করলেও সোনালী ও অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড যথাক্রমে ৩ হাজার ১৫৩ দশমিক ৩৫ কোটি ও ১ হাজার ৮৬২ দশমিক শূন্য ৬ কোটি টাকা লোকসান করেছে।