সূর্যসেনের অন্যতম সহযোগী বিপ্লবী বিনোদবিহারী চৌধুরী আর নেই

    0
    885

    সূর্যসেনের অন্যতম সহযোগী প্রবীন বিপ্লবী বিনোদবিহারী চৌধুরী আর নেই।

    সূর্যসেনের অন্যতম সহযোগী বিপ্লবী বিনোদবিহারী চৌধুরী আর নেই
    সূর্যসেনের অন্যতম সহযোগী বিপ্লবী বিনোদবিহারী চৌধুরী আর নেই

    গতকাল বুধবার রাতে কলকাতার ফর্টিজ হাসপাতালে তিনি শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তাঁর বয়স হয়েছিল ১০৩ বছর।
    বেশ কিছুদিন ধরে তিনি অসুস্থ ছিলেন। গত শনিবার অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে কলকাতার ফর্টিজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল স্থানীয় সময় রাত নয়টা ৪০ মিনিটে তিনি শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।
    বিনোদবিহারীর মরদেহ দেশে আনার বিষয়ে তাৎক্ষণিক কিছু জানা যায়  নি ।
    বাঙালির ইতিহাসের সঙ্গে বিনোদবিহারী চৌধুরীর জীবন যেন সমান্তরাল। যুদ্ধ, মহামারি, মন্বন্তর, দাঙ্গা, ব্রিটিশ শাসনের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ, ভাষা আন্দোলন, গণ-অভ্যুত্থান, মুক্তিযুদ্ধসহ বহু ঘটনা প্রত্যক্ষ করেছেন তিনি।
    এই বিপ্লবীর জন্ম ১৯১১ সালের ১০ জানুয়ারি চট্টগ্রামের বোয়ালখালীতে। বাবা কামিনী কুমার চৌধুরী পেশায় আইনজীবী এবং মা রামা চৌধুরী ছিলেন গৃহিণী। চট্টগ্রামের ফটিকছড়ির রাঙামাটিয়া বোর্ড স্কুলে তাঁর প্রাথমিক শিক্ষা শুরু। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চতর শিক্ষা লাভ করেন। ১৯৩৪ ও ১৯৩৬ সালে বন্দী অবস্থায় তিনি প্রথম শ্রেণীতে আইএ ও বিএ পাস করেন।
    বিনোদবিহারী ১৯৩০ সালে কংগ্রেস চট্টগ্রাম জেলা কমিটির সহ-সম্পাদক ছিলেন। এ ছাড়া ১৯৪০-১৯৪৬ সালে বঙ্গীয় প্রাদেশিক কংগ্রেস নির্বাহী কমিটির সদস্য থাকার পাশাপাশি ১৯৪৬ সালে কংগ্রেস চট্টগ্রাম জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ১৯৪৭ সালে পশ্চিম পাকিস্তান কংগ্রেসের সদস্য হন। ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে তাঁর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল।
    বিপ্লবীদের দলে নাম লেখানোর অল্প দিনের মধ্যেই বিনোদবিহারী মাস্টারদা সূর্য সেনের প্রিয়ভাজন হয়ে ওঠেন। ১৯৩০ সালের ঐতিহাসিক অস্ত্রাগার লুণ্ঠনে বিনোদবিহারী চৌধুরী ছিলেন সূর্যসেনের অন্যতম তরুণ সহযোগী।