“স্বাস্থ্যখাতের সক্ষমতা বৃদ্ধি: বর্তমান অবস্থা, চ্যালেঞ্জ ও উত্তরণের উপায়” শীর্ষক সেমিনার

0
521
“স্বাস্থ্যখাতের সক্ষমতা বৃদ্ধি: বর্তমান অবস্থা, চ্যালেঞ্জ ও উত্তরণের উপায়” শীর্ষক সেমিনার
“স্বাস্থ্যখাতের সক্ষমতা বৃদ্ধি: বর্তমান অবস্থা, চ্যালেঞ্জ ও উত্তরণের উপায়” শীর্ষক সেমিনার

স্বাস্থ্যখাতের সক্ষমতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে বাংলাদেশ এনজিও’স নেটওয়ার্ক ফর রেডিও এন্ড কমিউনিকেশন (বিএনএনআরসি) এর উদ্যোগে ও দি এশিয়া ফাউন্ডেশনের সহায়তায় আজ ০৩ এপ্রিল ২০২২ অনুষ্ঠিত হলো “স্বাস্থ্যখাতের সক্ষমতা বৃদ্ধি: বর্তমান অবস্থা, চ্যালেঞ্জ ও উত্তরণের উপায়” শীর্ষক বহুমাত্রিক অংশীজনদের নিয়ে আয়োজিত সেমিনার।

বরিশালের বিডিএস মিলনায়তনে আয়োজিত উক্ত সেমিনারে নাগরিক সমাজ সংস্থার প্রতিনিধি, সরকারী কর্মকর্তা, সাংবাদিক-শিক্ষক, স্থানীয় জনগোষ্ঠীর প্রতিনিধি সহ মোট ৪০ জন উপস্থিত ছিলেন। উক্ত সেমিনারের উদ্দেশ্য হলো স্বাস্থ্যখাতের সক্ষমতা আরো বৃদ্ধির জন্য বিভিন্ন পর্যায়ের অংশীজনদের অংশগ্রহণে স্বাস্থ্যখাতের বর্তমান অবস্থা, চ্যালেঞ্জ ও উত্তরণের উপায় নিয়ে আলোচনা করে স্বাস্থ্যসেবাকে কীভাবে আরো সহজলভ্য করা যায়, সে বিষয়গুলো তুলে ধরা।

সেমিনারের শুরুতে বিএনএনআরসি’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব এ এইচ এম বজলুর রহমান এই সেমিনারের লক্ষ্য, উদ্দেশ্য, আলোচ্য বিষয়সমূহ এবং চতুর্থ শিল্প বিপ্লব এর যুগে দ্রুত পরিবর্তনশীল বাস্তবতার চ্যালেঞ্জ, এর বহুমুখি প্রভাবের গতি ও সাবলীলতা এবং সুযোগ-সুবিধাসমূহ তুলে ধরেন জনঅংশগ্রহণের বিষয়ের গুরুত্ব আরোপ করেন এবং নিজেদের সক্ষমতা বৃদ্ধি করতে হবে। স ালক হিসেবে জনাব ঝুমু কর্মকার; সংবাদ পাঠিকা, বাংলাদেশ বেতার, বরিশাল এবং জনাব মো. সোহেল মারুফ; অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, শিক্ষা ও আইসিটি, বরিশাল সভাপতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। বরিশাল বিভাগের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার জনাব খন্দকার আনোয়ার হোসেন, (রাজস্ব) উক্ত সেমিনারে সম্মানিত প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন ডা. মারিয়া হাসান, সিভিল সার্জন, বরিশাল; ডা: মো: সাইফুল ইসলাম, পরিচালক, শেরে-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ; এবং ডা: মো: হুমায়ুন শাহীন খান, বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য), বরিশাল। 

সেমিনারের মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনা করেন জনাব শুভংকর চক্রবর্তী, সংস্কৃতি ও উন্নয়ন কর্মী এবং প্রেসিডিয়াম সদস্য, বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশন। আশা করা হচ্ছে, উক্ত সেমিনারের বক্তব্য এবং মুক্ত আলোচনার ফলে উত্থাপিত বিষয় সমূহ সবার (বিশেষ করে সুবিধাবি ত প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর) জন্য গুণগত ও মানসম্পন্ন স্বাস্থ্য-সেবা প্রদান নিশ্চিতকরণে সহায়ক ও কার্যকরী ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে। জনাব শামসুল ইসলাম দিপু; মিশন হেড, স্পিড ট্রাস্ট, বরিশাল তাঁর বক্তব্যে তেমন আশা ব্যক্ত করেন এবং অনুষ্ঠানে সবাইকে স্বাগত জানান। মুক্ত আলোচনায় অংশ গ্রহণ করে বক্তারা স্বাস্থ্যসেবার বিভিন্ন সমস্যা ও সম্ভাব্য সমাধান নিয়ে আলোচনা করেন সরকারী বেসরকারী অফিসের কমকর্তাবৃন্দ, নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দ, বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের প্রতিনিধিবৃন্দ, প্রেসক্লাবের প্রতিনিধিবৃন্দ, যুব সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বরিশাল বিভাগের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার জনাব খন্দকার আনোয়ার হোসেন, (রাজস্ব) উক্ত সেমিনারে সম্মানিত প্রধান অতিথি সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় একটি সুন্দও স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করা সম্ভব। বিশেষ অতিথি ছিলেন ডা. মারিয়া হাসান, সিভিল সার্জন, বরিশাল সরকারের বিভিন্ন উদ্যোগের কথা উল্লেখ করেন। ডা: মো: সাইফুল ইসলাম, পরিচালক, শেরে-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ বলেন ছাত্র-ছাত্রীদের একটি ব্যবস্থা আছে কিন্তু বিষয়টি নিয়ে সবাই অবগত নয় তাছাড়াও শেরে বাংলা মেডিক্যাল কলেজের বিভিন্ন সেবা ও উদ্যোগের কথা উল্লেখ করেন। ডা: মো: হুমায়ুন শাহীন খান, বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য), বরিশাল বলেন একটি ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টা ও সকলের সহযোগিতায় সুন্দর স্বাস্থ্যব্যবস্থা গড়ে তোলা সম্ভব। 

সভাপতি জনাব মো. সোহেল মারুফ অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, শিক্ষা ও আইসিটি উল্লেখ করেন একটি সুন্দর স্বাস্থ্য ব্যবস্থার বাস্তবায়নে আমাদের সবার এগিয়ে আসা উচিত এবং তা হলেই তা বাস্তবায়ন করা সম্ভব।

বিএনএনআরসি’র কর্মসূচি সমন্বয়কারী জনাব হীরেন প-িত সাবাইকে প্রাণবন্ত আলোচনায় অংশগ্রহণ করার জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। সেমিনার আয়োজন করার সার্বিক ব্যবাস্থাপনার দায়িত্ব পালন করে স্পীড ট্রাস্ট।

উল্লেখ্য, বিএনএনআরসি একটি গণমাধ্যম উন্নয়ন বিষয়ক সংস্থা যা ২০০০ সালে আত্মপ্রকাশ করে এবং গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অধীন এনজিও বিষয়ক ব্যুরো থেকে নিবন্ধিত হয়। বিএনএনআরসির কর্মপ্রচেষ্টা হলো বাংলাদেশে গণমাধ্যমের দ্রুত পরিবর্তনশীল বাস্তবতার চ্যালেঞ্জ এবং সুযোগ-সুবিধাসমূহ বিবেচনায় রেখে গণমাধ্যমের জ্ঞানভিত্তিক ও চলমান ইস্যু উভয় বিষয় নিয়ে গণমাধ্যমের উন্নয়ন ।

বিএনএনআরসি নলেজ-ড্রাইভেন মিডিয়া ডেভেলপমেন্ট-এর ভূমিকায় আ লিক, দেশীয় ও আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে কাজ করে থাকে। এটি জাতিসংঘের ওয়ার্ল্ড সামিট অন ইনফরমেশন সোসাইটি (ডব্লিউএসআইএস) ও জাতিসংঘের ইকোনোমিক এন্ড সোশ্যাল কাউন্সিল-এর বিশেষ পরামর্শক মর্যাদাপ্রাপ্ত সংস্থা এবং জাতিসংঘের ডব্লিউএসআইএস পুরস্কার- ২০১৬, ২০১৭, ২০১৯, ২০২০ এবং ২০২১ এর বিজয়ী এবং চ্যাম্পিয়ন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি