হত্যা মামলায় তিন ভাইসহ সাত জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

0
119

আমার সিলেট রিপোর্ট: কিশোরগঞ্জে পাকুন্দিয়ায় কৃষক আখতারুজ্জামান (৭০) হত্যা মামলায় তিন ভাইসহ সাতজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন বিজ্ঞ আদালত।

মঙ্গলবার (১৯ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৪টায় সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিজ্ঞ বিচারক মো: সায়েদুর রহমান খান এ রায় দেন।
এছাড়াও প্রত্যেক আসামিকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।
দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, জেলার পাকুন্দিয়া উপজেলার চরকাউনা গ্রামের মৃত রফিক মিয়ার ছেলে আল আমিন (২৫), মৃত আব্দুল গফুরের তিন ছেলে আসাদ মিয়া (৪০), কাশেম মিয়া (৫০) ও ফালান মিয়া (৪৫)।
অপর তিনজন হলেন আবুল কাশেমের ছেলে এনামুল হক (২০), আব্দুর রশিদের ছেলে সুমন মিয়া (২৫) এবং মুর্শেদ উদ্দিনের ছেলে মাসুদ (২৮)।

রায় ঘোষণার সময় আসামি আল আমিন ও এনামুল হক ছাড়া অন্য পাঁচজন আদালতে উপস্থিত ছিলেন।
কিশোরগঞ্জের পাবলিক প্রসিকিউটর আবু নাসের মো. ফারুক সঞ্জু বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলার সূত্রে জানা যায়, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে ২০১৮ সালের ২৭ ডিসেম্বর রাত সাড়ে ৮টার দিকে মোটরসাইকেল যোগে চরকাওনা নতুন বাজারে থেকে বাড়ি ফেরায় পথে রিয়াজ উদ্দিনের বাড়ির পূর্ব পার্শ্বের কালভার্টের পৌঁছা মাত্রই পূর্ব থেকে উৎপেতে থাকা আসামিরা রামদা, কিরিছ, লোহার রড, লাঠিসোটা দিয়ে নিহত কৃষক আখতারুজ্জামানকে রক্তাক্ত জখম করে মাটিতে ফেলে চলে যায়।

পরে গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে প্রথমে হোসেনপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার স্বার্থে পাঠান। পরদিন ২৮ ডিসেম্বর সকালে অবস্থা অবনতি হলে কর্তবরত চিকিৎসক তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করে। অ্যাম্বুলেন্সযোগে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথেই তার মৃত্যু হয়।

পরে ২৮ ডিসেম্বর তার স্ত্রী আশরাফুন্নাহার বাদি হয়ে সাতজনকে আসামি করে পাকুন্দিয়া থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্ত শেষে ২০১৯ সালের ৯ জুলাই পাকুন্দিয়া থানার তৎকালীন উপ-পুলিশ পরিদর্শক মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম সাতজনকেই অভিযুক্ত করে চার্জশিট দেন। আসামি পক্ষের আইনজীবী ছিলেন ম. সালেহীন সিদ্দিক।