হবিগঞ্জে বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তা কর্মচারী করোনায় আক্রান্ত

0
429
হবিগঞ্জে বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তা কর্মচারী করোনায় আক্রান্ত
বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তা কর্মচারী করোনায় আক্রান্ত

নূরুজ্জামান ফারুকী,বিশেষ প্রতিনিধিঃ  হবিগঞ্জ জেলার বিচার বিভাগ, নির্বাহী বিভাগ ও স্বাস্থ্য বিভাগের ১৭ জন কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন শ্রেণীর কর্মচারীরা করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তারা প্রত্যেকেই বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন।

এর মধ্যে ১০ জন বিচারক, ২ জন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, ২ জন উপজেলা নির্বাহী অফিসার, ১ জন সহকারি কমিশনার ভূমি, ১ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবং স্বাস্থ্য বিভাগের একজন ডাক্তার রয়েছেন। জেলার বিচার বিভাগে কর্মরত মোট ২৮ জন বিচারকের মধ্যে ১০ জনই করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় বিঘ্নিত হচ্ছে বিচার বিভাগের কাজ।

এছাড়া ৩ জনের মধ্যে ২ জন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক করোনা আক্রান্ত হওয়ায় অন্য কর্মকর্তাদের কাজের চাপ সামাল দিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। এছাড়া নির্বাহী বিভাগের আরও ৩ জন কর্মচারীও আক্রান্ত হয়েছে। জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, আক্রান্তদের মধ্যে রয়েছেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রাজস্ব বিজেন ব্যানার্জী, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক মিন্টু চৌধুরী ও তার স্ত্রী সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বর্ণালী পাল, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শামসুদ্দিন মো. রেজা, বাহুবলের উপজেলা নির্বাহী অফিসার মহুয়া শারমিন ফাতেমা ও নবীগঞ্জ সহকারি কমিশনার ভূমি উত্তম কুমার দাস। এছাড়া কর্মচারীদের মধ্যে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসকের সিএ আব্দুল মালেক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রাজস্ব এর সিএ শেখ আল-আমিন ও সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসের চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী কাজল মিয়া।

বিচারকদের মধ্যে আক্রান্ত হয়েছেন ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইব্যুনালের বিচারক সিরাজাম মুনীরা, সিনিয়র সহকারী জজ তানিয়া ইসলাম, সহকারী জজ অভিজিৎ চৌধুরী, সাজিদ-উল-হাসান চৌধুরী ও মো. আব্দুল হামিদ, চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ সুলতান উদ্দিন প্রধান ও মো. জাকির হোসাইন, জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফখরুল ইসলাম, রাহেলা পারভীন ও তাহমিনা হক।

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিকেল অফিসার ডাঃ ওমর ফারুক। ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মুখলেছুর রহমান উজ্জ্বল জানান, আরও অনেকেই আক্রান্ত আছেন। যাদের সবার নাম এখনও নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছেনা।

তিনি বলেন, এখন খুব বেশি আক্রান্ত হচ্ছেন। এত বেশি আক্রান্ত হচ্ছে যে সবার নাম তালিকা থেকে বাছাই করে বের করা কঠিন হয়ে পড়েছে। তবে আক্রান্তদের সবাই আইসোলেশনে আছেন। তাদের অনেকেই বেশ ভাল আছেন।