হরতালে যাত্রাবাড়ীতে শিবির নেতা নিহত,পুলিশও সাংবাদিকসহ আহত ১৫

    0
    239

    ঢাকা, ১৪ আগস্ট : জামায়াতে ইসলামীর হরতালের দ্বিতীয় দিনে আজ রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে ইসলামী ছাত্রিশিবিরের এক নেতা নিহত হয়েছেন। সংঘর্ষ চলাকালে পুলিশের ছোড়া রাবার বুলেটে আহত হয়েছেন সাংবাদিকসহ আরো ১৫জন। তবে পুলিশ জানিয়ে নিহত ওই শিবির নেতা গাড়ি চাপায় মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে। 

    নিহত ওই নেতার নাম খলিলুর রহমান মল্লিক (২০)। তিনি বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের ঢাকা মহানগর ৮৮ নম্বর ওয়ার্ড শাখার সভাপতি। তিনি টিকাটুলির বাংলাদেশ ইসলামিক ইউনিভার্সিটিতে ইসলামী স্টাডিজের প্রথম বর্ষের ছাত্র ছিলেন বলে জানা গেছে। পুলিশের ডেমরা জোনের সহকারী কমিশনার মিনহাজুল ইসলাম জানান, আজ বুধবার সকাল পৌনে ৭টার দিকে দনিয়া একে হাই স্কুলের কাছে হরতালের সমর্থনে একটি ঝটিকা মিছিল বের হয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছালে শুরু হয় সংঘর্ষ। এক পর্যায়ে পুলিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করতে রাবার বুলেট ছোড়ে। ধাওয়া খেয়ে শিবিরকর্মীরা চলে যাওয়ার পর এক যুবককে রক্তাক্ত অবস্থায় রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখে পুলিশ তাকে মিটফোর্ড হাসপাতালে নিয়ে যায়। কিন্তু চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পুলিশ পরে তার পরিচয় জানতে পারে জানিয়ে মিনহাজ বলেন, ঘটনার সময় কয়েকটি যানবাহন ওই রাস্তা দিয়ে দ্রুত সরে যাওয়ার চেষ্টা করে। তারই কোনো একটি ওই যুবককে ধাক্কা দিয়ে যেতে পারে। এ সময় অন্তত তিনজন পুলিশ আহত হয়েছে বলে জানান তিনি।
    মিটফোর্ড হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আব্দুর রশিদ বলেন, সকাল সোয়া ৭টার দিকে পুলিশ ওই যুবককে হাসপাতালে আনে। তবে সে আগেই মারা যায়। নিহত যুবকের মাথায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। শরীরের বিভিন্ন স্থানে রাবার বুলেটের জখমের চিহ্নও দেখা গেছে। চিকিৎসকও বলেন, কোনো যানবাহনের সঙ্গে ধাক্কা লেগেই খলিল মাথায় আঘাত পেয়ে থাকতে পারেন।
    বাংলাভিশনের সিনিয়র প্রতিবেদক জিয়া খান বলেন, পুলিশ রাবার বুলেট ছুড়তে শুরু করলে শিবির কর্মীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। পরে ওই যুবককে রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখা যায়। সংঘর্ষের সময় পুলিশের রাবার বুলেটে বাংলাভিশনের ক্যামেরা পারসন জহুরুল হক জনিসহ আরো কয়েকজন আহত হয়েছেন বলে জিয়া খান জানান।
    নিহত খলিলের বোন শিউলি আক্তার হাসপাতালে বলেন, তাদের গ্রামের বাড়ি পাবনার সাঁথিয়ায়। বাবার নাম শহিদুল ইসলাম। দুই ভাই তিন বোনের মধ্যে খলিল ছিল দ্বিতীয়। খলিল শিবিরের সঙ্গে জড়িত ছিল জানিয়ে শিউলি বলেন, তার ভাই জুরাইন এলাকায় একটি মেসে থাকত। এদিকে সকাল ৮টার দিকে আদাবরে একটি বাস ও ট্রাকে আগুন দেয়ার চেষ্টার সময় এক যুবককে আটক করে পুলিশ। আদাবরের ওসি শামীমুর রশিদ বলেন, ওই যুবককে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এছাড়া সকালে পুরান ঢাকার ধূপখোলায় হরতালের সমর্থনে মিছিলের খবর পাওয়া গেছে। আজ রাজধানীতে হরতালের মধ্যেও রিকশা ও অটোরিকশা চলাচল করছে। বিভিন্ন সড়কে আগের দিনের তুলনায় বেশি গণ পরিবহন চলতে দেখা গেছে। হরতালের কারণে গাবতলী, মহাখালী ও সায়েদাবাদ থেকে দূর পাল্লার বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। তবে ট্রেন ও লঞ্চ চলাচল স্বাভাবিক বলে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। প্রসঙ্গত, গত ১ অগাস্ট এক রিট আবেদনের রায়ে হাই কোর্ট রাজনৈতিক দল হিসাবে নির্বাচন কমিশনে জামায়াতে ইসলামীর নিবন্ধন অবৈধ ও বাতিল ঘোষণা করায় ৪৮ ঘণ্টার এ হরতাল ডাকে দলটি।