হাকালুকির চাতলা বিল থেকে মাছ আহরণঃব্যবস্থা নিতে জেলা প্রশাসক’কে নির্দেশ

0
221

জুড়ী (মৌলভীবাজার) সংবাদদাতাঃ মৌলভীবাজার জেলার জুড়ী উপজেলার হাকালুকি হাওরের চাতলা বিলে নিয়ম বর্হিভূতভাবে মৎস্য আহরণ করায় ইজারাদারের বিরুদ্ধে দ্রুুত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক’কে নির্দেশ দিয়েছে ভূমি মন্ত্রণালয়। ভূমি মন্ত্রণালয়ের সায়রাত-১ অধিশাখার যগ্ম সচিব দেলোয়ার হোসেন মাতুব্বর স্বাক্ষরিত স্মারকে- ৩১.০০.০০০০.০৫০.৬৮.০৪৫.২০.৬৬২/১(৬) এ নির্দেশ দেয়া হয়। সরকারি জলমহাল ব্যবস্থাপনা নীতি,২০০৯ অনুযায়ী তদন্ত পূর্বক দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বলা হয়েছে। ২০ ডিসেম্বর এ সংক্রান্ত একটি ছায়ালিপি মন্ত্রণালয়ে আবেদনকারী মনিরুল ইসলাম ও হাবিবুর রহমান পেয়েছেন বলে জানা গেছে। জানা যায়, এই হাওড়ের ৫১৮ একরের “চাতলা বিল” জল মহালটি উন্নয়ন স্কীমের আওতায় ১৪২৫ বাংলা হতে ১৪৩০ বাংলা সন পর্যন্ত ৬ বছরের জন্য ইজারা নেন জুড়ী ভেলী মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির সভাপতি ইউসুফনগর গ্রামের মোঃ জমির আলী। ইজারার শর্ত অনুযায়ী এই ৬ বছরের মধ্যে প্রতি ৩ বছর পর পর মৎস্য আহরণ করার শর্ত থাকলেও ইজারাদার তার অসৎ উদ্দেশ্য চরিতার্থ করার লক্ষ্যে প্রতি বছর মৎস্য আহরণের নিয়ম ভঙ্গ করে মৎস্য আহরণ করছেন। ইজারা নেয়ার তারিখ হতে প্রতি বছর শুষ্ক মৌসুমে ইজারাদার সেচ পাম্প দিয়ে পানি শুকিয়ে মাছ আহরণ করায় একদিকে যেমন মৎস ও উদ্ভিদের বংশ বিস্তার ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে তেমনি সরকারের রাজস্ব আয়ে এর প্রভাব পড়ছে। ইজারার নিয়ম অনুযায়ী এ বছর মাছ আহরণ করা নিষেধ থাকা সত্ত্বেও ইজারাদার সেই নিয়মের তোয়াক্কা না করে প্রতিদিন বেড় জাল দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকার মাছ আহরণ করে যাচ্ছেন।
মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান বলেন, অভিযোগের বিষয়ে তদন্তক্রমে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।