হাসপাতালে ভিজিট আদায়ঃকর্ম ফাঁকি দিয়ে পাইভেট বাণিজ্য!

    0
    221

    আমারসিলেট24ডটকম,২৬ডিসেম্বর,মতিউর রহমান মুন্নাঃ নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকদের বিরোদ্বে রয়েছে আকাশ চুম্বি অভিযোগ। হাসপাতালে বসেই কামাচ্ছেন হাজার হাজার টাকা এছড়াও অনেক চিকিৎসক কর্ম ফাঁিক দিয়ে জড়িত রয়েছে চিকিৎসার নামের পাইভেট বাণিজ্যে। হাসপাতালের পাশে চেম্বার খুলে এসব চিকিৎসক দিব্যি চালিয়ে আসছে রমরমা বাণিজ্য।

    জানাযায়, সরকারীভাবে বেতনভুক্ত চিকিৎসকরা সিন্ডিকেট করে হাসপাতালে রোগী দেখার পরিবর্তে নিজস্ব চেম্বারে বেশির ভাগ সময় রোগী দেখেন। দীর্ঘদিন ধরে চলছে এভাবে তাদের চিকিৎসার নামে রমরম বাণিজ্য। নবীগঞ্জ হাসপাতালে অনেক ডাক্তার আছেন যারা টাকা ছাড়া রোগী দেখেননা রোগীদের বলে অভিযোগ রয়েছে। হাসপাতালের প্রায় সব ডাক্তারই এসববে জরিত আছে অভিযোগে এদের মধ্যে এগিয়ে রয়েছে আব্দুস সামাদ, মির্জা রিয়াদ, ইফতেখার হোসাইন, চম্পক কুমার শাহা, বিথি রাণী বণিক। যাদের দরবারে খালি হাতে গিয়ে চিকিৎসা নিতে পারে না রোগীরা।

    ৩২ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে উপজেলার প্রায় সাড়ে ৪ লাখ লোকের চিকিৎসাসেবায় নিয়োজিত রয়েছেন মাত্র ৬ জন চিকিৎসক। চিকিৎসা সংকট, দালালদের প্রতারনা, অতিরিক্ত ভিজিট আদায় এবং নিয়মিত ডাক্তার না থাকায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিতে আসা দরিদ্র জনগনকে ভোগান্তিতে পড়তে হয়। ওষুধ ও চিকিৎক সংকট, অনিয়ম দুর্নীতিসহ বিভিন্ন সমস্যায় জর্জরিত হয়ে নবীগঞ্জ উপজেলার স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম মারাত্মকভাবে ভেঙ্গে পড়েছে। এর মধ্যে অসাধু ডাক্তাররা সরকারি হাসপাতালে বসেই রোগীদের কাছ থেকে ভিজিট আদায় করছেন এবং ডাক্তাররা তাদের প্রাইভেট চেম্বারে যাওয়ার পরামর্শ দেন।

    এলাকাবাসী অনতিবিলম্বে নবীগঞ্জ হাসপাতালে ডাক্তারদের চিকিৎসার নামে পাইভেট বাণিজ্যে ও হাসপাতালে বসে টাকা ইনকামের বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবী জানিয়েছেন।