নবীগঞ্জে মাটি বোঝাই ট্রাক্টর চাপায় শিশু নিহত

0
212

নূরুজ্জামান ফারুকী,বিশেষ প্রতিনিধিঃ নবীগঞ্জ উপজেলা ইনাতগঞ্জ ইউনিয়নে মাটি বোঝাই ট্রাক্টরের চাপায় এক শিশু নিহত হয়েছে। শনিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে উপজেলার শ্যামলী এলাকায় এই ঘটনাটি ঘটে। নিহত সাঈদ আহমেদ (৫) জালালশাফ গ্রামের হিফজুর আহমেদের ছেলে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সাঈদ আহমেদ শুক্রবারে শ্যামলী গ্রামে তার নানা কাছম আলীর বাড়িতে বেড়াতে আসে। সাঈদ তার নানার বাড়ির সামনের সড়কের পাশে খেলা করছিল। এ সময় থেকে দ্রুত গতিতে আসা মাটি বোঝাই ট্রাক্টরের চাকায় পিষ্ট হয়ে গুরুত্বর আহত হয় সাঈদ। গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয়া উদ্ধার করে নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করেন। সিলেট যাবার পথিমধ্যে সাঈদ মারা যায়। দুর্ঘটনায় কবলিত গাড়িটি স্থানীয় জনতা আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। ঘটনাস্থল থেকে ট্রাক্টর চালক জাহাঙ্গীর মিয়া (২৭) দৌড়ে পালিয়ে যায়।
এলাকার লোকজন অভিযোগ করে বলেন, স্থানীয় ভাবে ‘কুত্তাগাড়ি’ নামে পরিচিত মাটিটানা গাড়িগুলোর চালকদের অনেক নিষেধ করা সত্ত্বেও তারা বেপরোয়াভাবে গাড়ি চালায়। এর আগেও ছোট-বড় কয়েকটি দুর্ঘটনা হয়েছে। জানাযায় উল্লেখিত এলাকায় দীর্ঘদিন যাবত অবৈধভাবে মাটি উত্তোলন করে আসছেন বদরুজ্জামানের পুত্র নাসির আহমেদ ও কাছন মিয়ার পুত্র মন্নান মিয়া। তাদের অধীনে রয়েছে মাটি বহনের জন্য একাধিক গাড়ি। এ গাড়িগুলো দিয়ে সরকারি সম্পদ নষ্ট করে বেপরোয়া গতিতে রাস্তায় চলাচল করে আসছে। সাঈদকে চাপা দেওয়া ট্রাক্টরটি নাসির ও মন্নান মিয়ার। একাধিকবার এলাকাবাসী অভিযোগ করলেও প্রভাবশালী হওয়ার সুবাদে প্রশাসনকে ম্যানেজ করে মাটি উত্তোলন করে আসছে।
এ ব্যাপারে ইনাতগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মুসলিম উদ্দিন বলেন, “দুর্ঘটনায় কবলিত গাড়িটিকে উদ্ধার করে ফাঁড়ির নিয়ে আসা হয়। ঘটনার পর থেকেই গাড়ির চালক ও অবৈধভাবে মাটি উত্তোলন কারী নাসির, মন্নান পলাতক রয়েছে।’